default-image

ফেসবুকে পুতুল প্রথমেই জানালেন, তাঁর মেয়ে পৃথিবীর আলো দেখার কথা ছিল আরও তিন সপ্তাহ পর। তাঁরা সেভাবেই শারীরিক ও মানসিক সব প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলেন। এই সময়টা তেমন একটা ঘুম হয় না। হঠাৎ করে গতকাল রাতে তিনি বুঝতে পারেন সন্তান পৃথিবীর আলো দেখতে চায়। সঙ্গে সঙ্গে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি হন। ২০ জুন সকাল ৮টার দিকে তাঁর মেয়ে জন্ম নিয়েছে। মা হওয়ার অনুভূতি জানাতে গিয়ে পুতুল বলেন, ‘আমি এখনো ঘোরের মধ্যে রয়েছি। বারবার মনে হচ্ছে, এটা আমার অংশ, ওর দিকেই তাকিয়ে থাকছি। পৃথিবীতে এতকিছু পাওয়ার মধ্যে এই পাওয়া অন্যরকম। সন্তান প্রথম কোলে নিয়ে আমি কি করব, বুঝতে পারছিলাম না। এত সুন্দর হয়েছে মেয়েটা। ওর দিকেই তাকিয়ে রয়েছি।’

default-image

মেয়ের নাম হারমনি সৈয়দা গীতলীনা আগেই ঠিক করে রেখেছিলেন। জন্মের সময় মেয়ের ওজন হয়েছে ২ দশিমক ৪ কেজি। মা এবং মেয়ে দুজনই সুস্থ রয়েছেন। মেয়ের মুখ দেখার পর থেকেই বদলে গিয়েছে পুতুলের জীবন। পাশ থেকে শোনা যাচ্ছিল তাঁর মেয়ে কাঁদছিল। বেশ কিছুটা সময় কান্না থামানোর চেষ্টা করছিলেন নব্য এই পুতুল। জানালেন মেয়ে কাঁদলে তাঁরও কান্না চলে আসে। সবাই পুতুলকে বলছেন, মেয়ে দেখতে তাঁর মতোই হয়েছে। পুতুল বললেন, ‘সে আমার রাজকন্যা। সময়ের আগেই জন্ম নিল আমার কন্যা গীতলীনা। জীবনে তার কাজের ভেতর দিয়ে নিজেকেও যেন প্রমাণ করতে পারে, সময়ের চেয়ে এগিয়ে থাকা একজন মানুষ হিসেবে, সেই প্রার্থনা আর আশীর্বাদ রাখবেন সবাই।’

default-image

পুতুল গত বছর ১৪ এপ্রিল ঘরোয়া আয়োজনে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তার স্বামীর নাম সৈয়দ রেজা আলী। রেজা নিজেও গায়ক ও সংগীত পরিচালক। আগে অস্ট্রেলিয়ার একটি ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন। এখন তিনি ঢাকায় পুতুলের সঙ্গে গান করছেন। এই দম্পতি গত ভালোবাসা দিবসে জানিয়েছিলেন তাঁরা বাবা মা হতে চলেছেন। পুতুল জানলেন দুই তিন দিনের মধ্যে মেয়েকে নিয়ে বাসায় ফিরবেন।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন