default-image

সাধারণ মানুষের পাশাপাশি বিনোদন তারকারাও করোনাভাইরাসের টিকা নিচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় এবার টিকা নিলেন সংগীত তারকা তাহসান খান। গত সপ্তাহে নিবন্ধন করেছিলেন। বুধবার সকালে মহাখালীর একটি হাসপাতালে গিয়ে টিকা নেন তিনি। জানালেন, খুবই সহজভাবে টিকা নিয়েছেন। টিকা নেওয়ার সময় টেরই পাননি!

তাহসান বলেন, ‘ছোটবেলা থেকে নানা শারীরিক পরীক্ষার জন্য রক্তের নমুনা দিতে হয়েছে। তাই ইনজেকশন নেওয়ার অভিজ্ঞতা আছে। কিন্তু এবার টিকা নিতে গিয়ে শরীরে সুচের প্রবেশ বুঝতেই পারলাম না। মজার ব্যাপার হলো, টিকা দেওয়ার পরও নার্সদের জিজ্ঞাসা করেছিলাম, “টিকা দেওয়া হয়ে গেছে কি?” তাঁরা হাসি দিয়ে বললেন, ‘‘হ্যাঁ, হয়ে গেছে।’’ কিন্তু আমি বুঝতেই পারিনি। এই হলো অবস্থা।’

default-image

এদিকে টিকা নিয়ে বের হয়ে তাহসান তাঁর ফেসবুক পেজে দুটি ছবি পোস্ট করেছেন তাহসান। ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘চমৎকার আন্তরিকতার জন্য সামনের সারির হিরোদের ধন্যবাদ।’ টিকা দেওয়ার পরিবেশ দেখে খুশি তিনি। বললেন, ‘হাসপাতালের পরিবেশ খুব সুন্দর। কোনো ভিড় নেই। পরিষ্কার–পরিচ্ছন্ন। পরিকল্পিতভাবে, ঝামেলামুক্ত পরিবেশে চলছে টিকাদান। চিকিৎসক ও নার্সদের চমৎকার আন্তরিকতায় আমি মুগ্ধ।’ জানালেন, দুই মাস পর টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

হাসতে হাসতে তাহসান জানান, ফেসবুকে টিকা নেওয়ার ছবি দেখে দেশের বাইরে বসবাসরত তাঁর বন্ধুরা নাকি ‘হিংসায়’ মরে যাচ্ছেন। বলেন, ‘আমেরিকাতে ৬৫ বছরের ওপরের নাগরিকেরা টিকা দিতে পারবে। কিন্তু আমরা ৪০–এর ওপরেই টিকা দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছি। এ জন্য আমেরিকায় বসবাসরত বন্ধুরা আমাকে খুবই হিংসা করছেন।’ এই সংগীতশিল্পী আরও বলেন যে অনেক কিছুতেই প্রথম বিশ্বের দেশ থেকে তৃতীয় বিশ্বের দেশ পিছিয়ে। কিন্তু বিশ্বজুড়ে এই মহামারির মধ্যে টিকাদানের ক্ষেত্রে প্রথম বিশ্ব থেকে তৃতীয় বিশ্ব এগিয়ে। এটি বাংলাদেশের মানুষের অর্জন।

default-image

বুধবার টিকা নিয়েই সরাসরি নাটকের শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন তাহসান। মাবরুর রশীদ বান্নাহর ‘মায়া’ নাটকের শুটিং করছেন তিনি। বলেন, ‘এবার পযলা বৈশাখ ও ঈদের কাজ খুব একটা করা হবে না। সময় পাচ্ছি না। বাইরের দেশের জন্য দুটি গান করতে হবে। তা ছাড়া আমার মেয়ে আইরা কলকাতা থেকে দেশে এসেছে, তাকে সময় দিচ্ছি। এ কারণে অনেকগুলো নাটক ছেড়ে দিয়েছি।’ বাংলাদেশে অবস্থিত জাপানি দূতাবাসের জন্য দুটি গান করবেন তাহসান। একটি করোনাকালে বাংলাদেশ ও জাপানের বন্ধুত্বের ওপর, অন্যটি জাপানের তুমুল জনপ্রিয় গায়ক মিয়া জাওয়ের জনপ্রিয় গান ‘সীমা উতা’। গানটি বাংলায় অনুবাদ করা হয়েছে। এই গানের দুটি ভার্সন নতুন করে তৈরি করছেন তাহসান। বললেন, ‘“সীমা উতা” গানটি বাংলায় অনুবাদ করছি। বাংলা ও জাপানি দুটি ভাষাতেই হবে গানটি। এটি মিয়া জাওয়ের সঙ্গে ডুয়েট করছি। আগামী মাসেই গান দুটি তৈরি করতে হবে। আশা করছি দারুণ একটা অভিজ্ঞতা হবে।’

বিজ্ঞাপন
গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন