মাইনুল আহসান নোবেল।
মাইনুল আহসান নোবেল। ছবি: প্রথম আলো

নিকট অতীতের বেফাঁস কথাবার্তা ও উদ্ভট সব কর্মকাণ্ডের জন্য অনুতপ্ত, লজ্জিত নোবেল। ভারতের রিয়েলিটি শো দিয়ে আলোচিত এই গায়ক আজ রোববার দুপুরে প্রথম আলোকে তাঁর এই অনুতপ্ত হওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন। খুব শিগগির নতুন গান প্রকাশ করতে যাচ্ছেন নোবেল। নতুন গান প্রকাশের প্রাক্কালে কথা বলতে গিয়ে আগের প্রসঙ্গ আনতেই নিজের অতীত কর্মকাণ্ডের জন্য যে তিনি অনুতপ্ত, তাই জানালেন।
বাংলাদেশের ছেলে মাইনুল আহসান নোবেল ভারতের একটি রিয়েলিটি শোতে গান গেয়ে আলোচিত। অল্প সময়ে জনপ্রিয়তা পাওয়া নোবেল হঠাৎ করেই দেশের কিংবদন্তিদের নিয়ে ‘ঔদ্ধত্যপূর্ণ মন্তব্য’ করে সমালোচনার মধ্যে পড়েন। এই করোনায় নিজের মধ্যে বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে বলে মনে করছেন নোবেল। তাই অতীতের সব বিষয় ধুয়ে–মুছে নতুন করে তাঁর গানের জগৎটা সাজাতে চান বলে জানালেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

প্রথম আলোকে নোবেল বলেন, ‘অবশ্যই আমার সেসব কথাবার্তা কিংবা কর্মকাণ্ডের জন্য আমি লজ্জিত। আমি অনুতপ্ত। আমি আমার কথাগুলো আরও গুছিয়ে, আরও সুন্দরভাবে ভক্তদের জানাতে চাই। আমার ভুলগুলো সবার কাছে পরিষ্কার করতে চাই। মনের কথাগুলো সবাইকে জানাতে চাই।’

সত্যি কথা বলতে, ওই সময়টায় আমার জীবনটা কেমন জানি হয়ে গিয়েছিল। আমার পাশে কেউই ছিল না, সেভাবে বুঝিয়ে বলার মতো। তাই না বুঝে অনেক কিছুই করে ফেলেছি বা হয়ে গেছে। আস্তে আস্তে এখন সবই বুঝতে পারছি। মনে মনে ভীষণ অনুতপ্ত হচ্ছি।
মাইনুল আহসান নোবেল


নোবেল এ–ও বললেন, ‘সত্যি কথা বলতে, ওই সময়টায় আমার জীবনটা কেমন জানি হয়ে গিয়েছিল। আমার পাশে কেউই ছিল না, সেভাবে বুঝিয়ে বলার মতো। তাই না বুঝে অনেক কিছুই করে ফেলেছি বা হয়ে গেছে। আস্তে আস্তে এখন সবই বুঝতে পারছি। মনে মনে ভীষণ অনুতপ্ত হচ্ছি। আমি কারও সঙ্গে কাজ করতে চাচ্ছিলাম না, বিষয়গুলো সে রকমও না। অনেক পরে জানতে পেরেছি, যাঁরা আমাকে কাজের জন্য প্রস্তাব দিয়েছিলেন, তা ঠিকমতো আমার কাছেও আসেনি। আর আমার কাজের বিষয়গুলো তখন আমি নিজেও ডিল করতাম না। তাই কিছু ভুল–বোঝাবুঝি তৈরি হয়। আমিও বুঝে না–বুঝে অনেক কথা বলে ফেলেছি।’

default-image

কথায় কথায় নোবেল জানালেন, রিয়েলিটি শোর পর থেকেই তাঁর কাছে অনেক গান গাইবার প্রস্তাবও আসে। কিন্তু সেসব গানের অনেকগুলো তাঁর কাছে আবেদন তৈরি করতে পারেনি। এটাও তাঁর একধরনের ভুল ছিল বলে মনে করছেন নোবেল। বললেন, ‘পাঁচ শতাধিকের মতো গান আমার কাছে গাইবার প্রস্তাব ছিল। কিন্তু আমি ফিল করিনি, গানগুলো গাইবার। হয়তো আমারই বোঝার ভুল ছিল। সেখানে নিশ্চয় ১০-২০টা গান ভালো ছিল। এই একটা সমস্যা ছিল। সবার সঙ্গে যোগাযোগের ঘাটতি ছিল। এটা আমারও দোষ না, যাঁরা প্রস্তাব দিয়েছেন, তাঁদেরও দোষ না। তখনকার সার্বিক পরিস্থিতির কারণেই এমনটা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন
default-image

‘অভিনয়’ নামে নতুন একটি গান প্রকাশ করতে যাচ্ছেন নোবেল। এই গানের গীতিকার আহমেদ রিজভী, সংগীত পরিচালক আহমেদ হুমায়ূন, আর গানটিতে গিটার, সেতার ও মেন্ডোলিন বাজিয়েছেন ইমন চৌধুরী। সবাই তো বাংলাদেশি। অথচ এই আপনি বলেছিলেন, বাংলাদেশের কেউ আপনার সঙ্গে কাজ করার যোগ্যতা রাখেন না। এমন প্রশ্নে নোবেল বললেন, ‘না না, বিষয়টা মোটেও এমন ছিল না।’ তাহলে কেমন ছিল? ‘আমি কারও কাছ থেকে তেমন কোনো সান্নিধ্যই পাইনি। বয়সই তো কম ছিল। অনেক কিছু বুঝে না–বুঝে বলে ফেলেছি। সবকিছুর জন্য আমি অনুতপ্ত। আমি কাজ করতে চাই। কাজে মনোযোগী হতে চাই। গান নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই।’

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0