বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কিন্তু বিয়ে নিয়ে এত লুকোচুরি কেন? প্রতীক বলেন, ‘আমাদের অনেক আত্মীয়স্বজন। অনেকেই দেশের বাইরে থাকেন। সবাইকে নিয়েই বিয়ে করতে চেয়েছিলাম, কিন্তু করোনা বাড়ায় কাউকে জানানো সম্ভব হয়নি। ঘরোয়া পরিবেশেই বিয়েটা সারতে হয়েছে। আক্দ, কাবিনের সময় আমাদের দুই পরিবারের ঘনিষ্ঠ কিছু আত্মীয় উপস্থিত ছিলেন। আমাদের পরিবারের মধ্যে আমার মা (ফাতিমা হাসান) ও ভাই (প্রীতম হাসান) শুধু উপস্থিত ছিলেন। শিগগির বড় পরিসরে অনুষ্ঠান করব। তখন সবাইকে বলব।’

default-image

এই মুহূর্তে কনে বা বিয়ের কোনো ছবিও প্রকাশ করতে চান না। কবে, কোথায় বিয়ে করলেন, তা–ও জানাতে নারাজ প্রতীক, ‘এগুলো কিছুই এই মুহূর্তে বলতে চাইছি না। আত্মীয়স্বজন কাউকে জানাতে পারিনি। এ জন্য বিয়ে গোপন করেছি। প্রচারও করিনি। এখন আমাদের দুই পরিবারের যাওয়া–আসা হয়। আমার স্ত্রী আমাদের বাসায় আসে, আমিও তাদের বাসায় যাই। এভাবেই চলছে। অনুষ্ঠান করে তাকে বাসায় নিয়ে আসব।’

default-image

বর্তমানে গান নিয়েই ব্যস্ত প্রতীক হাসান। জানালেন, দুটি গানের রেকর্ডিং চলছে। এ ছাড়া আগের গানগুলো পর্যায়ক্রমে অনলাইনে প্রকাশ পাবে। গানের পাশাপাশি একটি রিয়েলিটি শোর বিচারকের ভূমিকায় তাকে দেখা যাবে। প্রতীক বলেন, ‘অনুষ্ঠান কর্তৃপক্ষ মনে করেছেন, তরুণদের গানের পালসটা আমি ধরতে পারব। বিচারক হিসেবে কাজ করার জন্য দেশ–বিদেশের অনুষ্ঠান দেখতে হচ্ছে। “এক্স ফ্যাক্টর”, “দ্য ভয়েস”সহ অনেক রিয়েলিটি শো আমার দেখা আছে। সেগুলো আমাকে অনুপ্রাণিত করে। আশা করছি, বিচারক হিসেবে সেসব অভিজ্ঞতা আমার কাজে আসবে,’ বলেন প্রতীক।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন