default-image

সংগীতশিল্পী মিলার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। পরোয়ানা ইতিমধ্যে পৌঁছে গেছে পল্লবী থানায়। গ্রেপ্তারের আদেশ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই এই সংগীতশিল্পীকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজা হচ্ছে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী ওয়াজেদ আলী জানান, এই সংগীতশিল্পীকে ধরতে পুলিশের দুটি ইউনিট কাজ করছে। মিলার দাবি, তাকে ফাঁসানো হয়েছে।
প্রায় দুই বছর আগে সংগীতশিল্পী মিলার বিরুদ্ধে অ্যাসিড হামলার অভিযোগে মামলা করেছেন তাঁর সাবেক স্বামী এস এম পারভেজ সানজারির বাবা এস এম নাসির উদ্দিন। সেই মামলায় আদালত তাঁকে গ্রেপ্তারের আদেশ দিয়েছেন। পল্লবী থানার ওয়াজেদ আলী জানান, দুই বছর আগে উত্তরার পশ্চিম থানায় এই গায়িকার বিরুদ্ধে মামলা হয়। সেই চলমান মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট জারি হয়েছে। গত ১০ তারিখে এই মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আদালত পল্লবী থানায় পাঠিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘গতকাল থেকেই আমরা তাঁকে অ্যারেস্ট করার জন্য চেষ্টা করছি। তাঁর বাসাসহ ঢাকার অনেকগুলো লোকেশনে তাঁর খোঁজ করেছি। কোথাও তাকে খুঁজে পাইনি। আমাদের দুটি ইউনিট সার্বক্ষণিক তাঁকে ধরার চেষ্টা চালাচ্ছে। যেখানেই থাকুক, আমরা যত তাড়াতাড়ি পারি তাঁকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করব।’

বিজ্ঞাপন

মামলাটিকে মিথ্যে অভিযোগ বলে দাবি করলেন সংগীতশিল্পী মিলা। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, এই ঘটনায় কাজের ছেলেটা নিজের দোষ স্বীকার করেছে। সে বলেছে, এখানে মিলা জড়িত না, এমনকি অ্যাসিডও এই গায়িকা ছোড়েননি। এই মামলায় বারবার তাঁকে ফাঁসানোর চেষ্টা হয়েছে। এবার তাঁকে সম্পূর্ণভাবে ফাঁসিয়ে দেওয়া হলো।

default-image

মিলা বলেন, ‘সর্বশেষ দিনে তারা আমাকে দিয়ে আপস বলায় আমার আব্বাকে দিয়ে হাজিরা দেওয়াতে দেয়নি। আমিও আর এই ছেলেটাকে নিয়ে একটাবার চিন্তা করতে চাই না। তাকে মাফ করে দিয়েছিলাম। সে-ই এখন আমাকে ফাঁদে ফেলে অ্যারেস্ট ওয়ারেন্ট বের করেছে।’ তিনি আরও জানান, তাঁর সাবেক স্বামীর সঙ্গে সমঝোতা হয়েছিল তিনি মামলা তুলে নেবেন। পরে মিলা আদালতে বিচারককে জানিয়েছিলেন, সানজারিকে ক্ষমা করেছেন। আক্ষেপ নিয়ে মিলা বলেন, ‘এখন আমি কাজে ফিরছি, এটাই তার সহ্য হলো না। আমাকে একদিনের জন্য জেলে পাঠালে তাদের জয় হয়।’ প্রসঙ্গত, সম্প্রতি নতুন গান ও গানের ভিডিও চিত্র প্রকাশ করেছেন মিলা।

default-image

সংগীতশিল্পী মিলার সাবেক স্বামী পারভেজ সানজারি ২০১৯ সালের ২ জুন দুর্বৃত্তদের ছোড়া অ্যাসিডে দগ্ধ হন। সে সময় জানা যায়, রাত আটটার দিকে উত্তরার ৩ নম্বর সেক্টরে পারভেজের গায়ে কে বা কারা অ্যাসিড ছুড়ে মারে। পরে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা করেন পারভেজ সানজারির বাবা এস এম নাসির উদ্দিন। সেই মামলায় মিলাকে সিইডি জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল। এর আগে ২০১৯ সালের ৩ সেপ্টেম্বর মিলার বিরুদ্ধে বিয়ের তথ্য গোপনের অভিযোগে মামলা করেন পারভেজ সানজারি।

default-image

এ ছাড়া যৌতুক ও নির্যাতনের অভিযোগে ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর সংগীতশিল্পী মিলা তাঁর সাবেক স্বামী পারভেজ সানজারির বিরুদ্ধে মামলা করেন। সেই মামলায় গ্রেপ্তার হন সানজারি। পরে তিনি জামিনে ছাড়া পান। গত বছরের ১১ জুলাই মিলা সানজারির বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন।

বিজ্ঞাপন
গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন