বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শুরুতে করোনায় আক্রান্ত হন দলের গীতিকার সুগা। পরদিন ‌র‌্যাপার আরএম, ভোকাল জিন কোভিড–১৯ পজিটিভ হন। বিগ হিট মিউজিক জানিয়েছে এ তিন সদস্যই কোভিড–১৯–এর টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছিলেন।

২০১৩ সালে আত্মপ্রকাশের পর বিটিএস বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়ে এবং জনপ্রিয়তার তুঙ্গে পৌঁছে যায়। শুধু কে–পপ নয়, এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যান্ড বিটিএস। তাদের গীতিকবিতা, চনমনে সংগীত ও নাচ তরুণদের উজ্জীবিত করে আসছে শুরু থেকেই। গত ২১ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসের মাইক্রোসফট থিয়েটারে অনুষ্ঠিত ৪৯তম আমেরিকান মিউজিক অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের মঞ্চে গান করে বিটিএস। ২০১৯ সালের পর এবারই প্রথম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গাইতে যায় দলটি। এত দিন বৈশ্বিক মহামারির কারণে সব কনসার্ট বাতিল করেছিল তারা।

আরএম যাঁর আসল নাম কিম ন্যাম–জুন এবং জিন বা কিম সিউক–জিন মাসের শুরুতে একবার কোভিড–১৯ নেগেটিভ হন। কোনো উপসর্গ না থাকলেও আরএম তবু কোয়ারেন্টিনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, জানায় বিগ হিট মিউজিক। তবে দ্বিতীয়বার কোভিড–১৯ নেগেটিভ হওয়ায় আর কোয়ারেন্টিনে যাননি জিন। পরে তাঁর শরীরেও কোভিডের হালকা উপসর্গ দেখা দেয়। কোরিয়ায় ফেরার পর জিন বা আরএমের সঙ্গে দলের অন্য সদস্যদের দেখা হয়নি।

default-image

কদিন আগে একটি দীর্ঘ বিরতির ঘোষণা দিয়েছিল বিটিএস। চলতি মাসের শুরুতে বিগ হিট টুইটারে এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল, ২০১৯ সালের পর দ্বিতীয়বারের মতো দীর্ঘ বিরতিতে যাচ্ছে বিটিএস। এর আগে নির্ধারিত অনুষ্ঠান ‘বিটিএস পারমিশন টু ড্যান্স অন স্টেজ—এলএ’ ও ‘২০২১ জিঙ্গেল বল ট্যুর’-এ অংশ নেবে দলটি। কোভিড পরিস্থিতিতে ২০২০ ও ২০২১ সালে তারা সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে এবং সব সময়ের মতো বিশ্বসেরা হয়ে থেকেছে। এই ছুটিতে তারা তাদের পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাবে। মার্চে ফেরার সময় তাদের পরিকল্পনার আভাস দিয়ে বিগ হিট জানিয়েছে, ফিরে এসে সিউলে কনসার্ট, নতুন অ্যালবামসহ নতুন একটি অধ্যায় শুরু করতে যাচ্ছে বিটিএস।

সর্বশেষ বিটিএস–এর ‘বাটার’ গানটি ইউটিউবে রেকর্ড সৃষ্টি করে। একসঙ্গে ৩ দশমিক ৮৯ মিলিয়ন ভক্ত গানটি দেখেন। দলটির ‘মাই ইউনিভার্স’ গানটি বিলবোর্ডের হট হানড্রেডের শীর্ষে অবস্থান করে।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন