বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘জাহাজী’ অ্যালবাম দিয়ে ১৯৯৬ সালে শিরোনামহীনের আত্মপ্রকাশ। ২০২১ সালে মহামারির কারণে দলের রজতজয়ন্তী উদ্‌যাপনের আয়োজন করা যায়নি। কিন্তু এ বছর শিরোনামহীনের সদস্যরা প্রস্তুত। ইতিমধ্যে ব্যয়বহুল একটি সংগীতচিত্র নির্মাণ করেছে তারা। শিগগিরই প্রকাশিত হবে সেটি।

রজতজয়ন্তী উপলক্ষে নতুন করে নিজেদের ওয়েবসাইট সাজিয়েছে শিরোনামহীন। ‘শিরোনামহীন জাহাজী’ নামে সেখানকার একটি পেজ রাখা হয়েছে ভক্তদের জন্য। সেখান থেকে ‘আরও একটি জানালা’ কার্যক্রমের মাধ্যমে দলটি আহ্বান করবে শিল্পকর্ম। সেরা শিল্পকর্মকে দেওয়া হবে পুরস্কার। গান কাভার করার প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েও আকর্ষণীয় পুরস্কার ও কনসার্টের টিকিট জেতার সুযোগ দেবে তারা। দলপ্রধান ও গিটারিস্ট জিয়াউর রহমান বলেন, ‘কুষ্টিয়ার এক কনসার্টে এক ভক্ত আমাদের একটি ক্যানভাস উপহার দিয়েছিলেন। সেটা দেখে আমরা ভীষণ খুশি হয়েছি। আমরা জানি, ভক্তরা এ রকম কাজ আমাদের জন্য করেন। এ কারণেই আর্টওয়ার্ক হান্টিংয়ের ভাবনা।’

default-image

রজতজয়ন্তী উপলক্ষে ঢাকায় মূল কনসার্টসহ চার বিভাগীয় শহরে চারটি ও নেপালে দুটি কনসার্ট করবে শিরোনামহীন। ঢাকার কনসার্টের জন্য ভারত থেকে আসবে মুম্বাই সিম্ফনি অর্কেস্ট্রা, যারা কনসার্টে বাজাবে শিরোনামহীনের সঙ্গে। এ লক্ষ্যে দলটির সঙ্গে অনুশীলনে ভারতে যাবেন শিরোনামহীন সদস্যরা। বছরব্যাপী ‘টুয়েন্টি ফাইভ ইয়ার্স অব শিরোনামহীন’–এর আয়োজন ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে রয়েছে ব্র্যান্ডমিথ এক্সপেরিয়েন্সিয়াল। তাদের প্রত্যাশা, বাংলাদেশের রকপ্রেমীদের জন্য এটি হতে যাচ্ছে বছরের সবচেয়ে বড় গানের অনুষ্ঠান।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন