বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হার্ডিংয়ের দলের সদস্য নিকোলা রবার্টস ও নেদিন কয়েল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দলের পক্ষ থেকে শোক প্রকাশ করেছেন। দলের একটি ছবি পোস্ট করে রবার্টস লিখেছেন, ‘এমন দিনও আসবে, মেনে নিতে পারছি না। হৃদয়টা ভার হয়ে আছে, সারাক্ষণই মনের মধ্যে ছোটাছুটি করছে পুরোনো স্মৃতি। আমার বা আমাদের একজন আজ আর আমাদের সঙ্গে নেই, এটা ভাবা যায় না। এটা বেদনাদায়ক আর নিষ্ঠুরতম এক বাস্তবতা।’

default-image

হার্ডিংয়ের একটি সাদাকালো ছবি পোস্ট করে তাঁর মা লিখেছেন, ‘হৃদয়ভাঙার ব্যথা নিয়ে খবরটা জানাতে হচ্ছে, আমার সুন্দর মেয়েটা, সারাহ আমাকে দুঃখ দিয়ে চলে গেছে। ক্যানসারের সঙ্গে তার যুদ্ধের কথা অনেকেই জানেন। জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত সে এই যুদ্ধ চালিয়ে গেছে। আজ সকালে সে নিঃশব্দে চলে গেল। বিগত দিনগুলোতে তাকে সাপোর্ট দেওয়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। যাওয়ার আগে সারা জেনে গেল, সবাই তাকে ভালোবেসেছিল।’

default-image

২০২০ সালে হার্ডিংয়ের ক্যানসার ধরা পড়ে। পরে দ্রুত সেটা তাঁর শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। চলতি বছরের মার্চে সারা লিখেছিলেন, ‘গত ডিসেম্বরে চিকিৎসক আমাকে বলেছেন, আসছে বড়দিনটাই সম্ভবত তোমার শেষ বড়দিন। তোমাকে সারিয়ে তোলা যাবে না, তবে কষ্টটা যাতে কম হয়, সেই চেষ্টা করা যাক।’

মেয়েদের ব্যান্ড ও ছেলেদের ব্যান্ড খুঁজে বের করার এক প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ২০০২ সালে পরিচিতি লাভ করেন হার্ডিংরা। সেবার জয়ী হয়েছিল তাঁদের ব্যান্ড গার্লস অ্যালাউড। দলটির পরিচিত গানগুলোর মধ্যে অন্যতম ‘দ্য প্রমিজ’।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন