বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মিমি জানিয়েছেন, এই চলচ্চিত্র উৎসবে তাঁকে দায়সারা আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। কেবল আমন্ত্রণের চিঠিটি পাঠানো হয়েছে তাঁর বাড়ির ঠিকানায়। আমন্ত্রণপত্রটি তিনি পেয়েছেন বাড়ির লেটার বক্সে। এরপর তাঁর সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেননি চলচ্চিত্র উৎসব উদ্‌যাপন কমিটি, করা হয়নি কোনো ফোনকল, এমনকি এসএমএসও পাঠায়নি। এ রকম আমন্ত্রণে তিনি অপমানিত হয়েছেন। মিমি বলেন, ‘আমার লেটার বক্সে কার্ড এসেছে, ওটুকুই। আয়োজকদের পক্ষ থেকে এসএমএস বা ফোনে আমাকে জানানো হয়নি আমি কোথায় কখন যাব।’ এই দায়সারা নিমন্ত্রণ তাঁকে ব্যথিত করেছে।

২০১৯ সালের চলচ্চিত্র উৎসবেও তাঁকে যথাযথ নিয়মে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। অনুষ্ঠানে অন্য চলচ্চিত্র তারকাদের মঞ্চে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হলেও তাঁকে পরিচয় না করিয়ে সঞ্চালক শুধু বলেছিলেন, ‘মিমি আছে আমাদের সঙ্গে।’ এসব ঘটনায় দারুণ ব্যথিত হয়েছেন মিমি চক্রবর্তী। ২০১৯ সালে উৎসব কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী। এবারও তিনিই উৎসব কমিটির চেয়ারম্যান। তিনি বলেছেন, অল্প সময়ের মধ্যে সবাইকে যথাসময়ে আমন্ত্রণ জানানো যায়নি। তিনি বলেন, ‘উৎসব করার জন্য আমরা সময় পাই মাত্র ১৫ দিন। আর নিমন্ত্রণপত্র আমাদের হাতে আসে উদ্বোধনের দুই কি তিন দিন আগে। ফলে সবাইকে যথাযথভাবে আমন্ত্রণ করা যায়নি।’ তবে তিনি এ ঘটনার জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

টালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন