জিয়াউল ফারুক অপূর্ব।
জিয়াউল ফারুক অপূর্ব।ছবি:সংগৃহীত

অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্বর শারীরিক অবস্থা এখন ভালোর দিকে যাচ্ছে। আজও তাঁর বুকের সিটিস্ক্যান টেস্ট করা হয়েছে। দুই দিন পর জানা যাবে, কবে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরতে পারবেন টেলিভিশন নাটকের জনপ্রিয় এই অভিনয়শিল্পী। প্রথম আলোকে আজ রোববার বিষয়টি জানালেন পরিচালক মিজানুর রহমান আরিয়ান, তিনি পরিবারের পক্ষ থেকে অপূর্বর চিকিৎসার দেখভাল করছেন।

default-image

আরিয়ান বললেন, ‘দুই দিন আগেও শরীর কিছুটা দুর্বল ছিল। খাওয়াদাওয়া করতে গেলেও সমস্যা হতো। বমি করত। এখন সেসব সমস্যা নেই। প্রতিদিনই শারীরিক অবস্থা ভালোর দিকে যাচ্ছে। খাওয়াদাওয়াও স্বাভাবিক। ওষুধপথ্য চলছে।’
কয়েক দিন ধরে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অপূর্বর শারীরিক অবস্থার কখনো উন্নতি, কখনো অবনতি; এভাবেই চলছিল। চিকিৎসকের পরামর্শে তাঁকে এক ব্যাগ প্লাজমা দেওয়া হয়। প্রথম আলোকে মিজানুর রহমান বলেন, ‘হাসপাতাল থেকে মাছ, মাংস, ফ্রুটস, জুসসহ যেসব খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে, সবই খেতে পারছেন।’

বিজ্ঞাপন

চিকিৎসকের বরাতে অপূর্বর শারীরিক অবস্থা জানিয়ে আরিয়ান বলেন, ‘অপূর্ব ভাইয়ের নানা রকম টেস্ট করা হয়। একাধিক ইনফেকশনও ধরা পড়ে। তবে চিকিৎসকেরা বলেছেন, অবস্থা মোটামুটি। শুরুতে তাঁর রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট ভালো ছিল না। গত বৃহস্পতিবার তাঁর বুকের প্রথমবার সিটিস্ক্যান করা হয়। সেই রিপোর্টে দেখা গেছে, করোনায় তাঁর ফুসফুসের ৩৫ শতাংশ আক্রান্ত হয়েছে।’

default-image


কাঁপুনিসহ জ্বর ও শারীরিক দুর্বলতা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন অভিনেতা অপূর্ব। এর আগে পরীক্ষায় তাঁর কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়। হাসপাতালে ভর্তির পর তাঁর খাবার খেতে অসুবিধা হচ্ছিল। কিছু খেলে বমি হতো।
গত জুলাইয়ে শুটিং স্পটে দুজন কুশলী করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় কোয়ারেন্টিনে ছিলেন অপূর্বসহ ওই ইউনিটের সবাই। পরে দুবার করোনা পরীক্ষার পর নেগেটিভ ফল নিয়ে শুটিংয়ে ফিরেছিলেন অপূর্ব। নানা রকম সতর্কতা সত্ত্বেও পরে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিনি।

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0