default-image

টেলিভিশন নাটকের জনপ্রিয় অভিনেতা অপূর্বর ৫০টি নাটক কিছুদিন আগে কোটি ভিউ অতিক্রম করেছে। এটা তাঁর মধ্যে নিঃসন্দেহে ভীষণ ভালো লাগার অনুভূতি এনে দিয়েছে। এ কারণে ভক্তদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। অপূর্ব বলেন, ‘এটা ঘটেছে শুধু দর্শকদের জন্যই। এই অর্জন আমার একার নয়, এর ভাগীদার নাটকের সঙ্গে যুক্ত সবাই। ওপরে আল্লাহ আর নিচে মানুষের ভালোবাসা ও দোয়াতে সম্ভব হয়েছে।’ এই ভালোবাসা অপূর্বকে দায়বদ্ধ ও আবেগতাড়িত করে বলে জানালেন তিনি। ভক্তদের ভালোবাসায় আবেগতাড়িত হওয়া অপূর্ব তাঁর এবারের জন্মদিনে বাবার অনুপস্থিতি ক্ষণে ক্ষণে উপলব্ধি করেছেন। যত দিন বেঁচে থাকবেন, তত দিন যত ধরনের ঘরোয়া আয়োজন হবে, সব সময় দুচোখ বাবাকেই খুঁজবে বলে জানালেনও তিনি।

default-image

অপূর্ব জানালেন, জন্মদিনের প্রথম প্রহরে পরিচিত ও কাছের কয়েকজন এসে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। কেক কেটেছেন। ফুল দিয়েছেন। কিন্তু তারপরও মনটা ছিল বিষণ্ন। অপূর্ব বললেন, ‘মনটা খারাপ ছিল। যথেষ্ট খারাপ ছিল। যতই খারাপ থাকুক, কাউকে তো আর উইশ করতে না বলতে পারি না। তারপর রাত ১২টায় আমার কাছের যারা, তারা সবাই এসেছে। আমাকে উইশ করে গেছে। আব্বুকে প্রচণ্ড মিস করেছি।’
জন্মদিনের প্রথম প্রহরে অপূর্বর বাবা তাঁর পাশে এসে দাঁড়াতেন বলেও জানালেন তিনি। বললেন, ‘আব্বু সব সময় একটা সুন্দর পাঞ্জাবি পরে পাশে দাঁড়াত। কেক কাটত। ছোটবেলায় আব্বু আমার জন্য একটা কিছু রান্না করত। বড় হওয়ার পর অবশ্য আব্বুকে খুব একটা কাছে পাইনি। হয়তো কাজের ব্যস্ততার ভিড়ে হারিয়ে গেছি। তারপরও বাবাসহ সবাই মিলে একটু খাওয়াদাওয়া করতাম।’

default-image

অপূর্ব জানালেন, তিনি কখনোই তাঁর জন্মদিন ঘটা করে পালন করেননি। তবে ২০১৪ সালের একই দিনে ছেলে আয়াশ জন্মগ্রহণ করায় দিনটি অন্য রকমভাবে আসে তাঁর জীবনে। অপূর্ব বললেন, ‘নিজের জন্মদিন ঘটা করে পালন না করলেও, আয়াশের কারণে একটু ভিন্ন রকম ভাবতে হয়। এখন এই দিনে ওকে নিয়ে সব আয়োজন থাকে। শুটিং রাখি না। আয়াশ চেয়েছে, আজ সে বাবার সঙ্গে ড্রাইভে বের হবে। তাই আজ বাবা-ছেলে মিলে ঘুরব।’

default-image

বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হিসেবে বিনোদন অঙ্গনে যাত্রা শুরু করেন অপূর্ব। ২০০৬ সালে গাজী রাকায়েত পরিচালিত ‘বৈবাহিক’ নাটক দিয়ে অভিনয়ে পথচলা শুরু। তারপর জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। পরে অপূর্ব নিজের প্রযোজনা সংস্থা এএসআই ক্রিয়েশন লিমিটেড প্রতিষ্ঠা করেন এবং ২০১২ সালে ‘ব্যাকডেটেড’ নামের টেলিছবি পরিচালনা করে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। শিহাব শাহীন পরিচালিত ‘ভালোবাসার চতুষ্কোণ’ ধারাবাহিক নাটকের শিরোনাম গানে কণ্ঠ দেন। শুধু ছোট পর্দায় নয়, অপূর্ব কাজ করেছেন বড় পর্দাতেও।

‘গ্যাংস্টার রিটার্নস’ নামের একটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি। ২০১৭ সালে এনটিভির ‘বড় ছেলে’ নাটকে অভিনয় করে প্রশংসিত হন এবং তারকা জরিপে শ্রেষ্ঠ টিভি অভিনেতা বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার লাভ করেন। পরের বছর ২০১৮ সালে অপূর্ব মিজানুর রহমান আরিয়ান পরিচালিত প্রথম ধারাবাহিক নাটক ‘গল্পগুলো আমাদের’-এ অভিনয় করেন। তবে ধারাবাহিক নাটকে এখন তাঁকে কমই দেখা যায়।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন