বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ফ্যামিলি ক্রাইসিস
ধারাবাহিকের মধ্যে আলোচিত ছিল ফ্যামিলি ক্রাইসিস। নাটকটি দিয়ে দীর্ঘদিন পর দর্শক পারিবারিক গল্পের সঙ্গে নিজেদের মেলাতে পেরেছেন। গল্পের সালমা, রুমা, শেফালি, রায়হান চরিত্রগুলোর মধ্যে নাগরিক জীবনকে তুলে ধরেছেন পরিচালক মোস্তফা কামাল রাজ। এনটিভির এই নাটকের অন্যতম চরিত্র শেফালি খালার মৃত্যুতে মর্মাহত এক দর্শক লিখেছেন, শেফালি খালার জন্য চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি। একজন মা পারে সন্তানের সুখের জন্য নিজের জীবন বিসর্জন দিতে। এই রকম সিরিয়াল বানানোর জন্য পরিচালককে অনেক ধন্যবাদ।

default-image

যমজ
ভীষণ জনপ্রিয় নাটক যমজ। প্রতি ঈদে দর্শকদের আগ্রহ থাকে নাটকটি নিয়ে। কারণ, এখানে মোশাররফ করিমকে দেখা যায় তিনটি চরিত্রে। আরটিভির এ নাটকের শুরুতে বাবা–ছেলে এবং পরে চাচার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন তিনি।

default-image

তিথির অসুখ
স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম চরকিতে মুক্তির পর প্রশংসিত হয় থ্রিলারধর্মী নাটক তিথির অসুখ। ইয়াশ রোহান ও তাসনিয়া ফারিণ অভিনীত এ নাটকে তিথির ভূমিকায় চমৎকার অভিনয়ের মাধ্যমে নতুন করে আলোচিত হন ফারিণ। এটি পরিচালনা করেছেন ইমরাউল রাফাত।

default-image

প্লাস ফোর পয়েন্ট ফাইভ
সাদামাটা গল্পের নাটক প্লাস ফোর পয়েন্ট ফাইভ। তবে চারপাশের পরিচিত ঘটনাকে মনে করিয়ে দিয়েছে এটি। দর্শকেরাও আপন করে নিয়েছেন নাটকের চরিত্রগুলোকে। চশমা ছাড়া পরিষ্কার দেখতে পান না মেহ্‌জাবীন। সমাজ ও পরিবারে নানা প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হতে হয় তাকে। তার পরিচয় হয় আফরান নিশোর সঙ্গে। তাদের প্রেমের গল্প নিয়ে এটি পরিচালনা করেছেন শিহাব শাহীন।

default-image

মায়ের ডাক
সৎভাই তাহসানকে বাকি ভাইয়েরা সহ্য করতে পারে না। ঝগড়া করে তারা বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। বড় বাড়িতে একা থাকেন কেবল মা। ঘটনাক্রমে তাদের মায়ের কাছে ফিরতেই হয়। ছেলেদের একত্র করতে এ নাটকে মায়ের যে ভূমিকা, সেটি প্রশংসিত হয়। মা চরিত্রে দিলারা জামান ছাড়া অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন শাহেদ আলী, মম, তৌসিফ, জোভান, ফারিণ ও কেয়া পায়েল। পরিচালনা করেছেন মাবরুর রশিদ।

default-image

আলো
নানামাত্রিক চরিত্রে নিজের মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন মেহ্‌জাবীন চৌধুরী। তাঁর লেখা আলো ছিল বছরের অন্যতম আলোচিত ও আলোকিত নাটক। নাটকের গল্প নারী ট্রাফিক পুলিশদের টয়লেট ও নানা সমস্যা নিয়ে। নাটকটির জন্য পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্কের পক্ষ থেকে বিশেষ সম্মাননা পান আলোর টিম। মাহমুদুর রহমানের পরিচালনায় নাটকে আরও অভিনয় করছেন মনোজ প্রামাণিক।

default-image

সৎ-এর সত্য সমাচার
কিছু মানুষকে লোভ ও লাভের নেশা ভালো হতে দেয় না। এ কারণে তারা লিপ্ত হন নানা অপকর্মে। ভালো মানুষের সঙ্গে মিশলে ভালো হওয়ার শিক্ষা পাওয়া যায়। এই সৎ এবং সত্য মিলেই সৎ-এর সত্য সমাচার বছরের অন্যতম দর্শকনন্দিত নাটক। ইউটিউবে নাটকটি দেখে রুহুল আমিন নামের একজন লিখেছেন, ‘হানিফ সংকেত মানে বাস্তবতার চিত্র ফুটে ওঠা এবং সংশোধনের পথ দেখানো।’ নাটকে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, তারিন, মীর সাব্বির, নাদিয়া সাঈদ, সুভাশিষ ভৌমিক প্রমুখ।

দেশের টেলিভিশন চ্যানেল, স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম মিলিয়ে এ বছরে প্রচারিত হয় পাঁচ শতাধিক নাটক। দুটি ঈদ ছাড়াও বছরজুড়ে আলোচিত ও নন্দিত নাটকগুলোর মধ্যে ছিল সুগার ফ্রি, গরম ভাতের গন্ধ, ফিমেল, যদি কোনো দিন, কাল্লু সুইপার, যদি আমি না থাকি, পুনর্জন্ম, ব্রেকিং নিউজ, তালাচাবি, লেগুনাচালক, বকুল ফুল, হ্যালো শুনছেন, হেমলকের ফিরে আসা, ২১ বছর পরে, ওএমজি, মরণোত্তম, আপনসহ আরও বেশ কিছু নাটক।

শেষটা অন্য রকম ছিল
ঈদুল ফিতরের রাতে এনটিভিতে দেখানো হয় মোশাররফ করিম ও তানজিন তিশা অভিনীত শেষটা অন্য রকম ছিল। ২৭ মে দুপুরে জি সিরিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশের পর ফেসবুক ও ইউটিউবে নাটকটি নিয়ে আলোচনা দেখা যায়। প্রকাশের ১১ ঘণ্টার মাথায় ইউটিউবে ১০ লাখবার দেখা হয় এটি

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন