বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

প্রসূন বলেন, ‘শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত আমরা বিয়ে নিয়ে চিন্তায় ছিলাম। আলহামদুলিল্লাহ সব এখন পাকাপাকি। আমাদের বিয়েটা এখন পারিবারিকভাবেই হচ্ছে। ঈদের পর আগামী শুক্রবার আমাদের বিয়ে হবে। দুই পরিবার এখন বিয়ে নিয়ে ব্যস্ত।’ তাঁর হবু বর ফারহান গাফফার একজন ব্যবসায়ী। এক যুগের বেশি সময় ধরে তাঁদের বন্ধুত্ব। গত ১২ জুন তাঁকে আংটি পরিয়েছে পাত্রপক্ষ।

default-image

করোনার কারণে সতর্কতার সঙ্গে সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে, অত ঘটাও করা হবে না। কোন কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ে হচ্ছে জানতে চাইলে প্রসূন বলেন, ‘করোনার কারণে আপাতত বড় পরিসরে কোনো আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে না। ঢাকার কিছু মসজিদে মেয়েরা প্রবেশ করতে পারেন। সেই রকম একটি মসজিদে বিয়ে হবে। বিশেষ কারণে গায়েহলুদ হচ্ছে না। তবে ঈদের পরের দিন মেহেদি হবে।’

default-image

বিয়ের পরের দিনই শুরু হচ্ছে কঠোর লকডাউন। এ কারণে আপাতত হানিমুন হচ্ছে না। পরিস্থিতি ভালো হলে দেশেই তাঁরা একান্তে ঘুরতে চান। তিনি বলেন, ‘পার্বত্য এলাকায় ঘুরতে পছন্দ করি। আমার কাছে মনে হয় দেশে অনেক ঘোরার জায়গা রয়েছে। একবার কেউক্রাডং ঘুরতে গিয়ে অনেক ভালো লেগেছিল। আমার হবু বরকে অনুরোধ করব, যদি সম্ভব হয় তাহলে আমাকে যেন পাহাড় দেখিয়ে নিয়ে আসেন। হানিমুন পর্ব পাহাড়ি এলাকাতেই সারতে চাই।’

দীর্ঘদিনের বন্ধুত্ব। কবে মনে হলো বিয়ে করবেন? এমন প্রশ্নে প্রসূন বলেন, ‘আমাদের প্রায়ই দেখা হতো, কথা হতো। পরে বুঝতে পারলাম আমরা প্রেমে পড়েছি, ওকে (ফারহান গাফফার) ছাড়া আমার কিছু ভালো লাগে না। আমরা নিজেদের মধ্যে এই নিয়ে কথা বলি। পরে সে নিজেই আমার বাবার কাছে বিয়ের প্রস্তাব দিলে বাবা রাজি হন।’

default-image

প্রসূন বর্তমানে ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত। করোনা এবং বিয়ের কারণে ঈদের কোনো নাটকে অভিনয় থেকে দূরে ছিলেন। সর্বশেষ তাঁকে নারী দিবসের একটি নাটকে দেখা গিয়েছিল। ২০১২ সালে লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টারের প্রথম রানারআপ হয়ে শোবিজে যাত্রা শুরু করেন প্রসূন।
আগেও একবার বিয়ে করেছিলেন অভিনেত্রী প্রসূন আজাদ। বর অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী মোহাইমিন সান। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে তাঁদের বিয়ে হয়েছিল। ২০১৮ সালে তাঁদের ছাড়াছাড়ি হয়।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন