default-image

এই অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করার কথা কোনো দিন ভেবেছিলেন কী? জানতে চাইলে সাজু বলেন, ‘ছোটবেলায় ভাবার প্রশ্নই আসেনি। তবে একটা সময় এসে নাটকের পাশাপাশি উপস্থাপনাটাও শুরু করি। মাঝেমধ্যে ভাবতাম বিটিভির ঈদ আনন্দ মেলায় উপস্থাপনার সুযোগ পেলে ভালো হতো। হয়তো একদিন ডাক আসবে। সেই ডাক এবার এসেছে। আনন্দ ও তৃপ্তি নিয়েই শুটিং করছি।’
অন্তত সাত থেকে আটবার ‘ঈদ আনন্দ মেলা’র মঞ্চে নাচেন নাদিয়া আহমেদ। এবার সরাসরি উপস্থাপনায়। নাদিয়া জানান, ছোটবেলায় ঈদের আনন্দ মানেই ছিল বিটিভির ঈদ ‘আনন্দ মেলা’। অন্য রকম ভালো লাগা কাজ করত এই অনুষ্ঠানটি ঘিরে। তিনি বলেন, ‘অনুষ্ঠানের পরের দিন আমরা সবাই আলোচনা করতাম, অনুষ্ঠানের কোন অংশটি বেশি ভালো লাগল, কার অংশটি ভালো লাগল—এসব নিয়ে। “আনন্দ মেলা” ঘিরে একটা নস্টালজিক ব্যাপার আছে আমাদের সবার জীবনে।’

default-image

প্রস্তাব পাওয়ার পর কেমন মনে হয়েছিল? জানতে চাইলে নাদিয়া বলেন, ‘আমাকে যখন বলা হলো, খুবই ভালো লাগছিল। তবে শঙ্কাও ছিল। যদিও আগে অন্যান্য অনুষ্ঠানে টুকটাক উপস্থাপনা করেছি। কিন্তু ঈদের এই অনুষ্ঠানটির দিকেই দর্শকের বেশি আগ্রহ থাকে। যখন দেখলাম সাজু ভাই আছেন, সুন্দর একটা টিম আছে, তখন একটু সাহস হলো। তারপরও একটা চ্যালেঞ্জ তো আছেই।’
জানা গেছে, বাংলা সিনেমার চারটি গান নিয়ে অনুষ্ঠানটিতে একটি পর্ব আছে। সেখানে চারটি জুটি পারফরম্যান্স করবে। ‘এক বিন্দু ভালোবাসা দাও’ গানটির সঙ্গে উপস্থাপনার পাশাপাশি সাজু খাদেম ও নাদিয়া নৃত্যও করবেন।
যৌথভাবে ‘আনন্দ মেলা’ অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করছেন মনিরুল হাসান ও গোলাম মোর্শেদ।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন