default-image

করোনায় আক্রান্ত সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফ করোনামুক্ত হয়েছেন। করোনামুক্ত হলেও জ্বর কিন্তু ছাড়েনি তাঁকে। জ্বরের কারণে খাওয়ার প্রতি একধরনের অনীহা তৈরি হয়েছে। তবে এর বাইরে আপাতত কোনো ধরনের সমস্যা অনুভব করছেন না তিনি। প্রথম আলোর সঙ্গে আলাপে আজ সোমবার দুপুরে এমনটাই জানালেন নাট্যজন নাসির উদ্দীন ইউসুফ।
কোভিড-১৯ টেস্ট করার পর গত ৩০ অক্টোবর রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন নাসির উদ্দীন ইউসুফ। তবে তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যদের কোভিড–১৯ টেস্টের ফলাফল নেগেটিভ আসে। নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, ‘চিকিৎসক এক সপ্তাহের অ্যান্টিবায়োটিক দিয়েছেন। পরশু বাসায় যাওয়ার অনুমতি দেবেন। জ্বর কেন পুরোপুরি ছাড়ছে না, তা পর্যবেক্ষণ করছেন। জ্বরের কারণে আমার মুখের রুচিও কমে গেছে। স্যুপ, জুস ছাড়া অন্য সব খাবার খেতে গেলেই কেমন যেন একটা গন্ধ আসে। তারপরও জোর করে খেতে হচ্ছে।’

default-image

এদিকে বাবার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা প্রসঙ্গে চিকিৎসকের বরাত দিয়ে এই সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বের মেয়ে এশা ইউসুফ বলেন, ‘গতকাল রোববার রাতে পরীক্ষার পর আমার বাবা নাসির উদ্দীন ইউসুফের শরীরে কোভিড-১৯ নেগেটিভ ফলাফল আসে। কিন্তু শরীর রোগমুক্ত নয়।

বিজ্ঞাপন

সাত দিন ধরে শরীরে জ্বর। তিনবার মূত্র ও রক্ত পরীক্ষা করে কোনো সংক্রমণ পাওয়া যায়নি। একবার রক্ত কালচার করেছে কিন্তু কিছু না পাওয়াতে আবার তা করা হচ্ছে। ৭২ ঘণ্টা পর ফলাফল পাওয়া যাবে। গতকাল থেকে অ্যান্টিবায়োটিক পুনরায় শুরু হয়েছে। আশা করা যায় জ্বর প্রশমিত হবে।’

default-image


নাসির উদ্দীন ইউসুফের অসুস্থতার খবরে দেশ–বিদেশে ছড়িয়ে থাকা ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা ভীষণ চিন্তিত হয়ে পড়েন। দ্রুত আরোগ্য কামনা করে প্রার্থনা করেছেন জেনে নাসির উদ্দীন ইউসুফের পরিবার সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে বলে জানালেন এশা ইউসুফ। তিনি বলেন,‘মানুষের ভালোবাসা মানুষকে বাঁচায় এ সত্য আমরা বিশ্বাস করি।’

default-image

নাসির উদ্দীন ইউসুফ ঢাকা থিয়েটার ও গ্রাম থিয়েটারের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। ‘একাত্তরের যীশু’ সিনেমা দিয়ে তিনি চলচ্চিত্র পরিচালনায় আসেন। তাঁর সর্বশেষ সিনেমা ‘আলফা’ ২০১৯ সালে মুক্তি পেয়েছে। তাঁর পরিচালনায় ‘গেরিলা’ ছবিটি বেশ কিছু শাখায় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে।

default-image

বিশ্বখ্যাত গ্লোব থিয়েটারে ২০১২ সালে তাঁরই নির্দেশনায় প্রথম বাংলা ভাষার নাটক হিসেবে উইলিয়াম শেক্‌সপিয়ারের ‘দ্য টেম্পেস্ট’ নাটকটি মঞ্চস্থ হয়। বাংলা মঞ্চে উল্লেখযোগ্য অনেক নাটকের নির্দেশনা দিয়েছেন নাসির উদ্দীন ইউসুফ, যা নাট্যে বা থিয়েটারে তাঁকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। এই মুক্তিযোদ্ধা ও নাট্যনির্দেশক চার দশকের বেশি সময়ের নাট্যচর্চায় ৩০টির বেশি নাটকের নির্দেশনা দিয়েছেন। অর্জন করেছেন একুশে পদক।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0