করোনার কারণে আটকে আছে নিশোর পণ্য

বিজ্ঞাপন
default-image

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রভাব পড়ল সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা আফরান নিশোর নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যে। বিভিন্ন সময় কিছু নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস ব্যবহারের জন্য চীন থেকে অনলাইনে অর্ডারের মাধ্যমে নিয়ে আসেন এ অভিনেতা। সেটা শুধুই ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য। সেই ধারাবাহিকতায় গত মাসেই এই অভিনেতার ব্যবহারের কিছু পণ্যসামগ্রী ঢাকায় পৌঁছানোর কথা ছিল। সেটা হঠাৎ করেই ঢাকায় না এসে চলে যায় হংকং, যার মূল কারণ করোনাভাইরাস বলে জানান এই তারকা। কারণ হিসেবে আফরান নিশো বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে সরাসরি বাংলাদেশের আসায় বাধা তৈরি হয় উড়োজাহাজটির। যে কারণে এখনো আটকে আছে আমার পণ্যগুলো।’

default-image

চীন থেকে পণ্য কেনা প্রসঙ্গে নিশো বলেন, ‘সবার কিছু পছন্দের ব্যান্ড থাকে, যেগুলো আমাদের দেশে অনেক সময় পাওয়া যায় না। অনেক সময় নিয়মিত পেতে অপেক্ষা করতে হয়। যেহেতু নিয়মিত ব্যবহার করতে হয়, তাই আগে থেকেই অনলাইনে অর্ডার করে রাখি। বেশির ভাগ সময় সেগুলো নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই আসে। এই প্রথম এক মাসের বেশি সময় দেরি হচ্ছে।’

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলো নিয়ে একটু দুশ্চিন্তার কথাও বললেন এই অভিনেতা। এই মুহূর্তে দেশের বাইরে যাওয়া নিয়েও সতর্ক অবস্থানে আছেন আফরান নিশো। আগামী মাসে ভারতে যাওয়ার কথা থাকলেও সেটাও করোনাভাইরাসের কারণে বাতিল করেছেন সময়ের এই জনপ্রিয় তারকা। খুব শিগগির আবার ভারতে যাওয়ার সময় চূড়ান্ত হবে উল্লেখ করে নিশো বলেন, ‘করোনার জন্য সবার মতো আমিও দেশের বাইরে যেতে খুব সতর্কে আছি।’

default-image

‘অতঃপর আমি’ নামে একটি নাটকের দৃশ্য ধারণের সেট থেকে কথাগুলো বলছিলেন নিশো। মধ্যবিত্তদের জীবনের ওপর দিয়ে যে সংকট যায় সেটাই ‘অতঃপর আমি’ নাটকের গল্প। গল্প নিয়ে আফরান নিশো বলেন, ‘মধ্যবিত্ত সমাজের মানুষের জীবনটা এমন যে এখানে কোনো কিছুই দিন শেষে থাকে না। মধ্যবিত্ত মানুষের জীবন চলমান থাকে। অনেক উত্থান-পতনের মধ্যে দিয়ে নাটকে আমার চরিত্র এগিয়ে যায়।’ নাটকের গল্প এবং নির্দেশনা দিয়েছেন আওরঙ্গজেব। নাটকে নিশোর সহশিল্পী হিসেবে আছেন তানজিন তিশা। বর্তমান নাটকের ব্যস্ততা প্রসঙ্গে আফরান নিশো বলেন, ‘এখন ২৬ মার্চ, পয়লা বৈশাখ, ঈদের নাটক নিয়ে দম ফেলার সময় পাচ্ছি না।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন