বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

‘আরও এক পৃথিবী’ চলচ্চিত্রে অভিনয় নিয়ে কথা বলতে গত মাসে কলকাতায় গিয়েছিলেন তাসনিয়া ফারিণ। তখন পরিচালকের সঙ্গে গল্প নিয়ে আলাপও করেছেন। পরিচালক ফারিণের বুদ্ধিমত্তায় মুগ্ধ হয়েছেন। তিনি জানালেন, মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর লেডিস অ্যান্ড জেন্টলম্যান ওয়েব সিরিজ দেখে ফারিণ মুগ্ধ হন। এরপর যোগাযোগ করেন। অতনু বলেন, ‘আমি মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর কাজের খুবই ভক্ত। তার ওয়েব সিরিজ দেখার পর মনে হয়েছিল, আমার নতুন চলচ্চিত্রের জন্য যাঁকে খুঁজছি সে–ই হচ্ছে ফারিণ। তার মধ্যে ধৈর্য্য, অধ্যবসায় ও পড়াশোনা আছে। ক্রিয়েটিভ অঙ্গনে মানুষদের এসব না থাকলে খুব মুশকিল হয়ে যায়। ওর দেখলাম খুবই আছে। আমার এই চলচ্চিত্রে পরিচালক কৌশিক গাঙ্গুলিসহ আরও যে দুজন অভিনেতা হিসেবে আছেন, সবাই বেশ দক্ষ অভিনয়শিল্পী। আমার মনে হয়, চারজনের এই রসায়নটা দর্শকদের কাছে দারুণ প্রাপ্তি হবে।’

default-image

‘আরও এক পৃথিবী’ চলচ্চিত্রের শুটিংয়ের জন্য ১৭ মে লন্ডন যাচ্ছেন ফারিণ। পরিচালক অতনু জানালেন, চারজনকে নিয়ে লন্ডনে যাচ্ছি। জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত শুটিং হবে। টানা ১৮ দিন শুটিং শেষে কলকাতায় তিন দিন শুটিং করে ছবির ক্যামেরা ক্লোজ করা হবে বলেও জানালেন তিনি। অতনু বলেন, ‘দিনে দিনে মানুষের যে গৃহহীন হয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা, বাড়ির কনসেস্টপটা ধূসর হয়ে যাচ্ছে, সেটাই এই ছবির গল্প।’
‘আরও এক পৃথিবী’ চলচ্চিত্রে ফারিণকে দেখা যাবে প্রতীক্ষা চরিত্রে। এর মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হবে জনপ্রিয় এই অভিনেত্রীর। অতনু ঘোষ এ–ও বলেন, ‘ফারিণকে দেখেই মনে হলো, এই মেয়েটিকেই আমার ১০ নম্বর ছবির জন্য খুঁজছিলাম। কথা বলার ধরন, শরীরী ভাষা, সব ঠিকঠাক মিলে যাচ্ছে।’

এসকে মুভিজের প্রযোজনায় তৈরি এই চলচ্চিত্র বছরের শেষ দিকে কলকাতার প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে। অতনু ঘোষ জানিয়েছেন, কিছুদিন আগে ট্যামসেন কোর্টনের লেখা ‘ফোর ফিট আন্ডার’ নামের একটি বই পড়েছেন তিনি। এটি লন্ডনের রাস্তায় ৩০-৩৫ জন মাথার ওপর ছাদহীন মানুষের জীবনের গল্প। ‘আরও এক পৃথিবী’ সিনেমার সূত্র সেই বই।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন