বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সময়ের ব্যস্ততম এই নায়িকার এ ধরনের স্ট্যাটাস কেন? কোথাও যাচ্ছেন কি? নাকি অন্য কোনো কারণ? জানতে গত শনিবার দুপুরে মেহ্‌জাবীনকে ফোন দিলে তিনি জানালেন, কোথাও যাচ্ছেন না, অন্য কোনো কারণও নেই। কাজের অতৃপ্তি থেকেই এ ধরনের স্ট্যাটাস। তিনি বলেন, ‘এই নাট্যাঙ্গন আমার আপন জায়গা। এখানেই আমার বেড়ে ওঠা। কাউকে অসম্মান করে বলছি না। বেশ কিছুদিন ধরে যে ধরনের চিত্রনাট্য হাতে আসছে, যে ধরনের কাজ আসছে, সেগুলো খুব একটা পছন্দ হচ্ছে না। এ সময়ে এসে এখন গুছিয়ে কাজ করতে চাচ্ছি। আমার কাজের প্রেশার আছে। কমাতে চাই। আগামী ভ্যালেন্টাইনের কাজের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছি। এ কারণে লিখেছি, আগামী দুই মাস কাজ করব না।’

default-image

মেহ্‌জাবীন জানালেন, এখন এত বেশি একই ধরনের গল্পের কাজ আসে যে করতেই ইচ্ছা করে না তাঁর। তিনি বলেন, ‘বছরে একটা চিরকাল আজ বা পুনর্জন্ম-এর মতো চিত্রনাট্যে কাজ করার সুযোগ পাই। এ ধরনের কাজ পাওয়া একটা ভাগ্যের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে এখন। সত্যি বলতে কী, বছরে অন্তত পাঁচটি দুর্দান্ত কাজ করতে চাই। যে কাজগুলো দেখে মানুষ পথেঘাটে আলোচনা করবেন, প্রশংসা করবেন। কিন্তু চাইলেও তেমনটি হচ্ছে না। আবার ভালো কাজ যে একেবারেই হচ্ছে না, তা তো নয়। তবে এখনো নিয়মিত ভালো চিত্রনাট্যের ঘাটতি রয়ে গেছে।’

তারপরও পছন্দ না হলেও কিছু চিত্রনাট্যে কাজ করতেই হয়। কারণ, মেহ্‌জাবীন একজন পেশাদার শিল্পী। তিনি বলেন, ‘অনেক সময় ভালো চিত্রনাট্যের অভাবে যখন কাজ কমিয়ে দিই, তখন আবার পরিচালক, সহশিল্পীদের মিস করি। আমি তো আর এখানে শখ করে কাজ করি না। শখ করে করলে তো অভিনেত্রী হতে পারব না। পেশাদার শিল্পী আমি। সেই হিসেবে পছন্দের বাইরে কিছু কাজ করতেই হয় আমাকে।’

default-image

ছোট পর্দার এই তারকার কথা, এই অঙ্গনে এখনো ছাড়া ছাড়া ভাবে কাজ হচ্ছে। বাজেটের অভাব না থাকলেও গল্পের অভাব আছে।

মেহ্‌জাবীন বলেন, ‘আমরা ভালো কাজ করতে চাই। এ জন্য শিল্পী, পরিচালক, নাট্যকার ও প্রযোজকদের মধ্যে সমন্বয় লাগবে। সবার জায়গা থেকে পরিকল্পনা করে কাজ করতে হবে। মোট কথা, গুছিয়ে কাজ করলে ভালো কাজের অভাব হবে না।’

মেহ্‌জাবীন সম্প্রতি শেষ করেছেন মাসুম শাহরিয়ার পরিচালিত নবনীর গল্প নামে এক ঘণ্টার একটি নাটকের কাজ। শিহাব শাহীনের ‘নীল জলের কাব্য’ নামে ভ্যালেন্টাইনের একটি কাজের অর্ধেক শুটিং শেষ করেছেন তিনি।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন