বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মৌটুসী বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে মন খারাপ করে বাড়ি ফিরতাম। শুটিংয়ে যাচ্ছি, তার জন্য একটি প্রস্তুতিতে থাকতাম। আমি সব সময় অনুশীলন করে কাজ করি। গিয়ে দেখতাম যে কাজটা ভালোবাসা দিয়ে করতে চাই, সেই কাজ শুটিং ইউনিট থেকে অবহেলিত, অনেকটা দায়সারা। চরিত্রায়ন, পোশাক, অভিনয় এসবই কেমন যেন হুটহাট করে হচ্ছিল। ধর তক্তা, মার পেরেক ধরনের। প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির জায়গাটা প্রায়ই শূন্যের কোটায় নেমে আসছিল। প্রতিদিন শুটিং শেষে মন খারাপ থাকত। শিল্পীর জায়গায় আমার কোনো অর্জনই হচ্ছিল না। দুই বছর আগেই সিদ্ধান্ত নিই, এভাবে চলতে পারে না। তখন কাজ কমিয়ে দিই।’

default-image

‘একান্নবর্তী’ নাটক দিয়ে টেলিভিশনের পর্দায় ক্যারিয়ার শুরু করেন মৌটুসী। নাটকটি দর্শকদের মধ্যে সারা ফেলে। তারপর থেকেই টানা কাজ করে গেছেন। এভাবে টেলিভিশন থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়া কষ্টের বললেন মৌটুসী। তিনি বলেন, ‘টেলিভিশন আমার ভালোবাসার জায়গা। কিন্তু মাধ্যমটা আগের মতো নেই। যে কারণে আমি অনেক দিন কাজ করিনি। এখন সম্পর্কটা একেবারেই শেষ করতে চাই। আবার হয়তো কোনো দিন ফিরতে পারি। তবে এমন না যে আমাকে কাজ করতেই হবে। আমি না থাকলে ইন্ডাস্ট্রির কিছুই আসবে যাবে না। তবে যেহেতু দীর্ঘদিন এই পেশার আয় দিয়েই চলেছি, তাই অর্থনৈতিকভাবে কিছুটা চাপে থাকতে হবে। কিন্তু মনের বিরুদ্ধে কিছু করব না। তবে অভিনয়ের শিক্ষার জায়গা আরও প্রসারিত করতে চাই।’

default-image

মৌটুসী গত দুই বছরে অনলাইনের জন্যে ‘স্পটলাইট’ ও ‘আড়াই মন স্বপ্ন’ নামের দুটি গল্পে অভিনয় করেছেন। সম্প্রতি নাম লিখিয়েছেন ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ নামের একটি সিনেমায়। নতুন করে টেলিভিশনের আর কোনো কাজ না করলেও গল্প ও চরিত্র পছন্দ হলে ওটিটি ও সিনেমার কিছু কাজ করবেন।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন