হানিফ সংকেতের রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় ‘ইত্যাদি’ নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন।
হানিফ সংকেতের রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় ‘ইত্যাদি’ নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন।ছবি:সংগৃহীত

স্বেচ্ছাশ্রমে ৬০০ বাঁশের সেতু বানিয়ে আলোচিত বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার হলিদাবগা গ্রামের সেই জাহিদুল ইসলামকে দেখা যাবে জনপ্রিয় বিনোদন ম্যাগাজিন ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানে। হানিফ সংকেতের রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় ‘ইত্যাদি’ নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন।

‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ মামুন প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সেতু নির্মাণের কারিগর জাহিদুল ইসলামকে ‘ইত্যাদি’র এবারের পর্বে দেখা যাবে। ১৪ অক্টোবর রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ‘ইত্যাদি’র এবারের পর্ব ধারণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে আটটায় বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে একযোগে ‘ইত্যাদি’ সম্প্রচার করা হবে।

default-image
বিজ্ঞাপন

মামুন আরও বলেন, ‘ইত্যাদি’র এবারের পর্বে থাকছে বগুড়ার জাহিদুল ইসলামের স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সেতু নির্মাণের একটি প্রতিবেদন। এ ছাড়া মানুষের জন্য স্বেচ্ছাশ্রমে এমন প্রশংসনীয় কাজ করার জন্য তাঁকে ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানের পক্ষ থেকে একটি মোটরসাইকেলও উপহার দেওয়ার দৃশ্য দেখা যাবে।

default-image

মামুন আরও বলেন, ‘ইত্যাদি’র এবারের পর্বে থাকছে বগুড়ার জাহিদুল ইসলামের স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সেতু নির্মাণের একটি প্রতিবেদন। এ ছাড়া মানুষের জন্য স্বেচ্ছাশ্রমে এমন প্রশংসনীয় কাজ করার জন্য তাঁকে ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানের পক্ষ থেকে একটি মোটরসাইকেলও উপহার দেওয়ার দৃশ্য দেখা যাবে।
‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠান থেকে মোটরসাইকেল উপহার পেয়ে দারুণ আনন্দিত জাহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘নদী-খালে সেতুর জন্য দুর্ভোগের খবর পেলেই এত দিন নিজের একটা পুরোনো ভাঙা সাইকেল চালিয়ে হাজির হতাম। দূরের পথে সাইকেল চালিয়ে যেতে এত দিন কষ্ট হতো। “ইত্যাদি” অনুষ্ঠানে হানিফ সংকেত স্যার ১০০ সিসির একটি মোটরসাইকেল উপহার দেওয়ায় এখন কেউ ডাক দিলে সহজেই সেখানে পৌঁছাতে পারছি।’
৪০ বছর ধরে এলাকায় নদী, খাল-বিলে বাঁশের সেতু বানিয়ে চলেছেন জাহিদুল। এই পর্যন্ত স্বেচ্ছাশ্রমে প্রায় ৬০০ বাঁশের সেতু বানিয়েছেন তিনি। অনেক সেতু নির্মাণের কয়েক বছরের মধ্যে পাকা সেতু হয়েছে।

default-image

মানুষের দুর্ভোগ ও ভোগান্তি নিরসনে জাহিদুল ইসলামের সেতু বানানোর গল্প নিয়ে ‘এখনো সেতু গড়ে দেন জাহিদুল’ শিরোনামে ২০১৯ সালের ১১ মে প্রথম আলোতে একটি প্রতিবেদন ছাপা হয়। তারও আগে ২০১৮ সালে প্রথম আলোর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জাহিদুল ইসলামের সেতু বানানোর কর্মকাণ্ড নিয়ে একটি ভিডিও প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। ২০১৮ সালের ৫ নভেম্বর ‘৬০০ বাঁশের সেতু বানালেন জাহিদুল’ শিরোনামে প্রথম আলো অনলাইনে জাহিদুল ইসলামকে নিয়ে নির্মিত ভিডিও প্রতিবেদন প্রচারিত হয়।

এর আগে ‘সেতু দরকার? আছেন জাহিদুল’ শিরোনামে ২০০৮ সালের ২২ নভেম্বর প্রথম আলোয় ছাপা হয়েছিল জাহিদুলের সেতু বানানোর গল্প।

default-image

জাহিদুল ইসলাম রোববার প্রথম আলোকে বলেন, ২০১৯ সালে প্রথম আলোতে প্রতিবেদন ছাপা হওয়ার পর নতুন করে আরও ৬০টি সেতু বানিয়েছেন তিনি। তাঁর বানানো সেতু গ্রামে গ্রামে মানুষের যাতায়াতের দুর্ভোগ ঘুচিয়ে চলেছে। গড়েছে এক গ্রামের সঙ্গে অন্য গ্রাম, এক এলাকার সঙ্গে অন্য এলাকার সেতুবন্ধ।

এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নদী-খাল পারাপারে মানুষের দুর্ভোগের কথা জানতে পারলেই এত দিন ছুটে যেতেন জাহিদুল ইসলাম। এলাকাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে বাঁশ-কাঠের সেতু বানিয়ে ফেলেন। আবার কোনো কোনো এলাকার মানুষ নিজেরাই খবর দেন জাহিদুলকে। নিজের পুরোনো সাইকেল ঠেলে হাজির হন তিনি। নদী, খাল-বিল পারাপারে সমস্যা হলে এলাকাবাসী তাঁকে খবর পাঠান। সবাইকে সঙ্গে তিনি সেতু তৈরি করে দেন। মানুষ দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পেলে তাঁর অন্য রকম ভালো লাগে।

বিজ্ঞাপন
default-image

৩০ হাজার টাকা থেকে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত খরচ হয় একেকটি সেতুতে। এই টাকার জোগান দেন গ্রামবাসী। কেউ বাঁশ দেন, কেউ সুতলি, কেউ লোহা। প্রতিটি সেতু তৈরিতে ব্যক্তিগতভাবে সামান্য টাকা দেন জাহিদুল। নিজে গায়ে-গতরে খাটেন ও নেতৃত্ব দেন।
সেতু বানানো ছাড়াও জাহিদুল বহু বাল্যবিবাহ বন্ধ করেছেন। কোথাও বাল্যবিবাহের খবর পেলে ছুটে যান জাহিদুল। মা-বাবাকে বুঝিয়ে শিশুকন্যাকে বিদ্যালয়ে পাঠান। আবার দরিদ্র কন্যাদায়গ্রস্ত মা-বাবার প্রতি সাধ্যমতো আর্থিক সহযোগিতার হাতও বাড়ান তিনি। কন্যাদায়গ্রস্ত মা-বাবাকে অর্থসহায়তা দেন। অভাবী মানুষকে ওষুধ কিনে দেন। এসব কাজের জন্য তাঁকে ইউনিয়ন বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটির সদস্যপদে রাখা হয়েছে। সড়কের পাশে গাছ লাগান। এ পর্যন্ত রাস্তার পাশে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদের আঙিনা ও সরকারি জায়গায় এ পর্যন্ত প্রায় ৫০ হাজার তালগাছের চারাসহ ফলদ, বনজ ও ভেষজ গাছ লাগিয়েছেন। দিগদাইর ইউপির চেয়ারম্যান আলী তৈয়ব জানান, জাহিদুল নিজ খরচে এসব গাছ লাগিয়েছেন।

default-image

নিয়মিত পর্বসহ এবারও রয়েছে সমসাময়িক বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে বেশ কিছু নাট্যাংশ। এবারের ‘ইত্যাদি’তে উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা হলেন সোলায়মান খোকা, জিয়াউল হাসান, আজিজুল হাকিম, আবদুল কাদের, আফজাল শরীফ, শুভাশীষ ভৌমিক, শবনম পারভিন, কামাল বায়েজীদ, আমিন আজাদ, মোহাম্মদ বারী, জিল্লুর রহমান, নিপু, জামিল হোসেন, তারেক স্বপন, রাশেদ মামুন অপু, ইমিলাসহ আরও অনেকে।
হানিফ সংকেত জানালেন, ‘৩০ অক্টোবর শুক্রবার “ইত্যাদি” প্রচারিত হওয়ার কথা থাকলেও সেদিন পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। তাই এক দিন আগে অর্থাৎ ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রাত আটটার বাংলা সংবাদের পর প্রচারিত হবে।’ ইত্যাদি রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন।

মন্তব্য পড়ুন 0