বিজ্ঞাপন

কিন্তু গত প্রায় দেড় বছরে তিন ঈদের মেহ্‌জাবীনের কাজের চিত্র পাল্টে গেছে। কমেছে অভিনীত ঈদের নাটকের সংখ্যাও।

default-image

বিধিনিষেধের কারণে গত তিনটি ঈদের আগে আগে শুটিং করেননি মেহ্‌জাবীন। ঈদের পরে শিথিল বিধিনিষেধের ফাঁকে ফাঁকে কিছু কাজ করেছেন এই অভিনেত্রী।পরের ঈদে সেই নাটকগুলোই প্রচারিত হয়েছে।
মেহ্‌জাবীন বলেন, ‘ঈদের কাজগুলোতে গল্প ও নির্মাণে বাড়তি যত্ন থাকে। এ কারণে ঈদের কাজগুলোও গুরুত্বপূর্ণ। সাধারণ সময়ের কাজ হলে তেমন কিছু মনে হতো না। কিন্তু কিছু তো করার নেই। বিধিনিষেধের মধ্যে কেউ কেউ হয়তো কাজ করেছেন। আমি নিজের নিরাপত্তা, পরিবারের নিরাপত্তার কথা ভেবে কাজ করিনি।’

default-image

মেহ্‌জাবীনের জন্য আগামী ঈদও তাই। লাইট-ক্যামেরার সামনে নয়, তাঁর এখন সময় কাটছে চারদেয়ালে মধ্যে। বিধিনিষেধের কারণে আগামী ঈদুল আজহার বেশ কটি কাজ বাতিল করেছেন তিনি।

default-image

এ অভিনেত্রী জানান, ঈদুল আজহা নিয়ে প্রত্যাশা ছিল। ভেবেছিলেন, এবার হয়তো পূর্ণোদ্যমে ঈদের কাজ করতে পারবেন। আগেভাগে কাজ শুরুও করেছিলেন। মিস্টার অ্যান্ড মিসেস চাপাবাজ, প্লাস ৪.৫, পুনর্জন্ম, যদি কোনো দিনসহ প্রায় ১০টি ঈদের কাজ শেষও করেছেন। এর মধ্যেই আবার করোনা বেড়ে গেল। হঠাৎ করেই বিধিনিষেধ শুরু হলো। ঈদের বেশ কিছু কাজ বাতিল করলেন। ২৮ জুন থেকে শুটিং করছেন না।
মেহ্‌জাবীন বলেন, ‘সিনেমা দেখা ও ঘুমানোই এখন কাজ। প্রতিদিনই সিনেমা দেখছি। থ্রিলার বেশি দেখা হচ্ছে।’

default-image

সরকারি ঘোষণা এসেছে, আগামীকাল থেকে শিথিল হচ্ছে বিধিনিষেধ। ঈদের আগে শুটিংয়ে ফিরছেন কি? জানতে চাইলে মেহ্‌জাবীন জানান, যাঁদের ঈদের কাজের সিডিউল বাতিল করা হয়েছে, সবাই যোগাযোগ করছেন। বলেন, ‘বিধিনিষেধ শিথিল হচ্ছে, করোনার সংক্রমণ তো কমছে না। বাড়ছেই। ঈদের কাজে ফিরব কি না, এখনো সিদ্ধান্ত নিইনি। ইনডোর শুটিংয়ের অনুমতি আছে। ইনডোরে ভালোভাবে গল্প বলা যাবে কি না, সেটাও ভাবার বিষয় আছে।’

default-image
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন