বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

নাটক, সিনেমা, ওয়েব সিরিজ তিন মাধ্যমেই কাজ করছেন সজল। জানালেন ওয়েব সিরিজে কাজ করতেই তাঁর ভালো লাগে। নাটকটা তাঁর ভালোবাসার জায়গা। ফিল্মটা তাঁর স্বপ্ন। এই স্বপ্ন তিনি নষ্ট করতে চান না। যে কারণে তিনি খুব বেছে বেছে সিনেমায় অভিনয় করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের নাটক নিয়ে প্রচুর পরিমাণ অভিযোগ থাকে। চাইলেও আমরা একটু আরামে তিন–চার দিনে শুটিং করতে পারি না। দুই দিনে শারীরিক ও মানসিক চাপ নিয়ে শুটিং করতে হয়। কিন্তু ওয়েব ফিল্মে অনেক সময় নিয়ে, ডিটেইলসে কাজ করা যায়। গল্পে বৈচিত্র্য এবং বড় একটি আয়োজন থাকে।’

default-image

সম্প্রতি তাঁর অভিনীত ‘পাফড্যাডি’ ওয়েব সিরিজের বেশ কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঘুরতে থাকে। ছবিতে দেখা যায় নায়িকা পরীমনির সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠ তিনি। এ প্রসঙ্গে সজল জানান, ওয়েব সিরিজের একটি দৃশ্যের জন্য তাঁদের কিছুটা ঘনিষ্ঠ হতে হয়েছে। এখানে আলাদা কিছু নেই। যতটুকু প্রয়োজন, ঠিক ততটুকুই আছে। তিনি বলেন, ‘অশ্লীল কিছু নেই। একটি আন্ডারওয়ার্ল্ডের গল্পে যেটা প্রয়োজন, ঠিক সেটাই আছে। আমরা ভালো গল্প নিয়েই দর্শকের সামনে হাজির হব।’

অনেক দিন করোনা সচেতনতায় ঠিকমতো শুটিং করতে পারেননি তিনি। কয়েক মাস ধরে পুরোদমে কাজ নিয়ে ব্যস্ত আছেন। সজল সম্প্রতি ‘জুতা চরণবাবু’ নামে একটি টেলিছবিতে অভিনয় করেন। তার সহশিল্পী ছিলেন সারিকা। নাটকটির মূল বার্তা, কোনো কাজই ছোট নয়। শুটিংয়ের সময়ের মজার অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করে জানান, তাঁর চরিত্র এতই মানানসই ছিল যে একজন সাধারণ মানুষ তাঁকে জুতা সেলাই করার জন্য পা থেকে জুতা খুলে বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। জানালেন, তিনি শিগগির আবারও ওয়েভ সিরিজ নিয়ে ব্যস্ত হচ্ছেন।

default-image
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন