default-image

ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো বিটিভির নাটকে অভিনয় করলেন অভিনয়শিল্পী শাহেদ আলী। বিটিভির নাটকে অভিনয়ের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে এই অভিনেতার। দেড় যুগ ধরে নিয়মিত নাটক ও চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় দিয়ে নিজের শক্ত অবস্থান তৈরি করেছেন। কিন্তু বিটিভির নাটকের জন্য সে রকম কোনো প্রস্তাব তিনি কখনোই পাননি।

তরুণ শাহেদ তখন ১৩–১৪ বছরের কিশোর। তাঁর মনে হলো, বাবার মতো অভিনেতা হলে তিনি ক্যারিয়ারে ভালো করবেন। বাবার কোট–জুতা পরে তিনি চলে যান বিটিভির আতিকুল হক চৌধুরীর সঙ্গে দেখা করতে। বাবার জুতা–কোট পরার উদ্দেশ্য ছিল তাঁকে দেখে যেন বড় মনে হয়। ১৯৮৮ সালের সেই ঘটনা স্মরণ করে শাহেদ জানান, তিনি অভিনেতা হওয়ার স্বপ্নে বিভোর ছিলেন। ভেবেছিলেন, অভিনয় না জেনেও তিনি অভিনেতা হতে পারবেন। আতিকুল হক চৌধুরীর সঙ্গে দেখা করে তাঁর পায়ের নিচ থেকে মাটি সরে যায়। সেদিনের সেই ঘটনা স্মরণ করে তিনি বলেন, ‘আমার অভিনয়ে কোনো প্রশিক্ষণ ছিল না। শ্রদ্ধেয় আতিকুল হক সাহেব বললেন, অভিনয় না শিখে ভালো অভিনেতা হওয়া যায় না। এতে ছোট চরিত্রে সুযোগ মিলবে কিন্তু দক্ষ অভিনেতা হওয়া হবে না। বিটিভি থেকে বের হওয়ার সময় প্রতিজ্ঞা করলাম, অভিনয় না শিখে আর বিটিভিমুখী হব না।’ তারপর কেটে গেছে ৩২ বছর। এরপর আর কাজের জন্য বিটিভিতে প্রবেশ করেননি। মনোযোগ দিয়েছেন অভিনয় শিখতে।

default-image
বিজ্ঞাপন

পরে তিনি ১৯৯৮ সালে থিয়েটারে নাম লেখান। প্রথম টেলিভিশনে অভিনয় করেন ২০০৪ সালে। নাটকটির নাম ‘হারানের নাতজামাই’। নাটক থেকে তিনি বিজ্ঞাপন ও চলচ্চিত্রে নিয়মিত অভিনয় শুরু করেন। বিটিভির নাটকে নাম লেখানো নিয়ে কোনো অভিমান ছিল কি না, জানতে চাইলে তিনি জানান, ভালো কোনো গল্পে অভিনয়ের প্রস্তাব তিনি আগে পাননি। তিনি নিজেকে চেনানোর চেয়ে কাজ দিয়ে পরিচিতি পেতে চেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ অভিনেতা হিসেবে একটু একটু করে গড়ে তোলার প্রচেষ্টার মধ্যে দিয়ে এতটা বছর গিয়েছে। দীর্ঘ সময় পরে মামুনুর রশীদ ভাইয়ের মাধ্যমে সুযোগ পেয়েছি। অভিনয় করে ভালো লাগছে।’

তাঁর বাবা ছিলেন বিটিভির তালিকাভুক্ত অভিনেতা। তিনি বাবার কাছে শুনতেন, ‘যত দিন পর্যন্ত সে বিটিভিতে অভিনয় করতে না পারবে, তত দিন পর্যন্ত সে অভিনেতা হিসেবে অসম্পূর্ণ থাকবে।’

default-image

সম্প্রতি তিনি নাম লিখিয়েছেন ধারাবাহিক নাটক ‘জিন্দাবাহার’-এ। এটি লিখেছেন মামুনুর রশীদ। পরিচালনা করেছেন ফজলে আজিম জুয়েল। নাটকে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন আহমেদ রুবেল, আজাদ আবুল কালাম, শতাব্দী ওয়াদুদ, নাজনীন চুমকি প্রমুখ। বিটিভিতে দৃশ্যধারণ চলছে। পলাশী যুদ্ধের পরের কিছু ঘটনা নিয়ে সাজানো হয়েছে ইতিহাসভিত্তিক এই নাটক। নাটকে খশনোবিশ নামের একটি রহস্যজনক চরিত্রে দেখা যাবে শাহেদকে। বর্তমানে তিনি বেশ কিছু একক এবং ধারাবাহিক নাটক ও ওয়েভ সিরিজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

default-image
বিজ্ঞাপন
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন