বিজ্ঞাপন
default-image

বাস্তবতার ছোঁয়া আনতে নাটকটিতে সত্যিকারের ৫০ জন যমজকে কাজে লাগানো হয়েছে। তাঁরা এক্সট্রা হিসেবে অভিনয় করেছেন। আজাদ কালাম বলেন, ‘হয়তো রাস্তা বা বাইরের কোনো দৃশ্য, পাশ দিয়ে হেঁটে যাবে দুজন যমজ। হয়তো চায়ের দোকানে বসে আড্ডা দিচ্ছে আরও কয়েকজন যমজ। এসব কারণেই বিভিন্ন জেলা থেকে ২৫ জোড়া যমজ খুঁজে বের করতে হয়েছে। একসঙ্গে এত যমজ নিয়ে শুটিং করতে গিয়ে বিড়ম্বনায়ও পড়েছি। যেখানেই যাই, মানুষ ভিড় করে। পুবাইলের লোকজন কিন্তু শুটিং দেখে অভ্যস্ত। মোশাররফ করিম, জাহিদ হাসানকে নিয়ে শুটিং করলেও স্থানীয় মানুষ এখন আর ভিড় করে না। কিন্তু এত যমজ দেখে অসংখ্য মানুষ এসে ভিড় করেছে, সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে।’

default-image

টুইন ভিলেজ-এ গুরুত্বপূর্ণ এক জোড়া যমজ চরিত্র করছেন আনিসুর রহমান মিলন। একটা চরিত্র শহর থেকে গ্রামে ফেরা এক যুবক, অপরজন গ্রামেই থাকে। এ ধরনের চরিত্রে এটা তাঁর দ্বিতীয় কাজ। এর আগে অলসপুর ধারাবাহিকে যমজ চরিত্র করেছিলেন। তিনি বলেন, ‘অনেক আনন্দ নিয়ে নাটকটি করেছি। সবাই যেহেতু যমজ। দৃশ্যধারণে যাওয়ার সময় প্রতিবার সহ-অভিনেতা কোন যমজ চরিত্রটি করছেন, জেনে নিতে হয়েছে। তা ছাড়া একসঙ্গে দুটি মজার চরিত্র করে ভালো লেগেছে।’ নাটকে আরও অভিনয় করেছেন রহমত আলী, চিত্রলেখা গুহ, প্রাণ রায়, শারমীন জোহা শশী, নাদিয়া খানম, শ্যামল মাওলা প্রমুখ।

default-image

নির্মাতা জানালেন, নাটকটির প্রথম ২৫ পর্বেই লোকসান গুনতে হবে। কারণ, বাজেটের চেয়ে খরচ বেশি হয়ে গেছে। স্বাভাবিক একটি দৃশ্যের শুটিং করতে যে সময় লাগত, একাধিক যমজ থাকায় এই নাটকে সময় লেগেছে এর দ্বিগুণ। নাটকটি লিখেছেন সুজিত বিশ্বাস, আজাদ কালামসহ তিনজন। এটি গত মঙ্গলবার প্রচার শুরু হয়েছে। রাত ১০টায় সপ্তাহে তিন দিন আরটিভিতে প্রচারিত হবে।

default-image
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন