তাসনুভা তিশা । ছবি সংগৃহীত
তাসনুভা তিশা । ছবি সংগৃহীত

তাসনুভা তিশা অভিনীত নাটক ‘ছোট্ট একটি শব্দ’ আজ প্রচারিত হবে বাংলাভিশনে। এটি পরিচালনা করেছেন শফিক মুক্তা। সম্প্রতি তিশা চরকির ওয়েব সিরিজ ‘নেটওয়ার্কের বাইরে’–এর শুটিং শেষ করেছেন। অংশগ্রহণ করছেন ‘মনে মনে’ নাটকের শুটিংয়ে। লকডাউনে শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা এবং অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা বললেন তিনি।

নাটকের নাম ‘ছোট্ট একটি শব্দ’ কেন?

নাটকটির গল্প জীবনমুখী। একটা সময় মেয়েরা জীবনটাকে খুব আবেগ দিয়ে চিন্তা করে। দেখা যায়, বিয়ের পর সেই আবেগ বাস্তবতার মুখোমুখি হয়ে ক্রমেই হারিয়ে যেতে থাকে। তখন বেঁচে থাকাটাই প্রতিদিনের চ্যালেঞ্জ মনে হয়। বিয়ের পরে পরিবারে ভালোবাসা খোঁজার গল্পই নিয়ে নাটকটি।

default-image

মনে হচ্ছে বাইরে আছেন?

হ্যাঁ। আমি শুটিংয়ে আছি। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কাজ করছি।

কবে থেকে শুটিং করছেন? করোনায় শুটিংয়ে ফেরা ঝুঁকিপূর্ণ মনে হয়নি?

১৫ এপ্রিল থেকে। অবশ্যই করোনার ঝুঁকি আছে। তবে কিছু করার নেই। ঈদের কাজ করতে হবে। সবাই জীবন–জীবিকার জায়গা থেকেই কাজ করছেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

করোনায় শুটিংয়ে সুবিধা ও অসুবিধা কী?

কোনো সুবিধা নেই। সবাই অনেক আতঙ্ক নিয়ে কাজ করেন। কলাকুশলীরা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন। কিন্তু সব সময় শিল্পীদের মাস্ক পরার সুযোগ থাকে না। শুটিং ও মেকআপের সময় মাস্ক খুলে রাখতে হয়। ভয়টা থেকেই যায়।

রোমান্টিক দৃশ্যে কি অভিনয় করছেন?

হ্যাঁ। কিছু করার নেই। গল্পের প্রয়োজনে কাছাকাছি আসতেই হয়। রোমান্টিক দৃশ্য কোনোভাবেই এড়ানো যাচ্ছে না। গল্পের প্রয়োজনে দৃশ্যগুলো করতে হচ্ছে।

বাসা থেকে বের হওয়ার আগে প্রস্তুতি কেমন থাকে?

বের হওয়ার আগে লেবু চা খাই, মাস্ক পরি, স্যানিটাইজার কাছে রাখি। চিন্তা করি, নিরাপদে বাসায় ফিরব তো! ভয় নিয়েই বাসা থেকে বের হই।

default-image

করোনার মধ্যেও কাজ করছেন কেন?

স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজে নেমেছি। কারণ, শুটিং করতে হবে। এ ছাড়া কোনো অপশন পাচ্ছিলাম না। আমাদের তো অভিনয় করেই জীবন চালাতে হয়। আমাদের কাজের সঙ্গে টেকনিক্যাল টিম জড়িত। সামনে ঈদ। অন্য সেক্টরের মতো আমাদের সেক্টরেও মানুষ কষ্টে আছেন। এখন কম লোক নিয়ে কাজ হচ্ছে। সবাই বিপদে আছেন।

ঈদের কাজে কোনো বৈচিত্র্য দেখতে পাচ্ছেন?

লকডাউনের আগে গল্পগুলোয় কাজ করার ভালো সুযোগ ছিল। এখন ভালো গল্প পেলেও খুব বেশি বৈচিত্র্য আনতে পারছি না, তবে চেষ্টা করছি। কারণ, আমাদের বেশির ভাগ শুটিং করতে হচ্ছে ঘরের মধ্যে।

বিজ্ঞাপন
default-image

আপনার ক্যারিয়ারে কোনো অপ্রাপ্তি আছে?

আমার কোনো অপ্রাপ্তি নেই। আমি অনেক ভালো আছি। ক্যারিয়ার নিয়ে আমার কোনো অভিযোগ নেই। আমি যা চেয়েছি, তার চেয়ে বেশি পেয়েছি।

ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত বড় পাওয়া কী?

সবাই আমাকে ভালোবাসে। বাইরে বের হলে দর্শক বলেন, আমার অভিনয় ভালো হয়। তাঁরা আমার ভক্ত। অনেকে বলেন, ‘আপু, আপনার হাসির মতোই আপনি কিউট। আরও বেশি কাজ চাই।’ দর্শকের এসব ভালোবাসাকে আমি প্রাপ্তি মনে করি।

default-image
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন