default-image

দুই ধারে কাশবন। মাঝের রাস্তা ধরে দৌড়াচ্ছেন নিলয় আলমগীর। ডান হাতে ঝুলছিল প্রায় তিন হাত লম্বা একটি বোয়াল মাছ। আরেক হাতে নববধূর হাত। ‘বোয়াল মাছের মাথা’ নাটকের শুটিংয়ের জন্য ৬ কেজি ওজনের বোয়াল মাছটি সংগ্রহ করে দিয়েছেন নিলয়ের বাবা।

‘বোয়াল মাছের মাথা’ নাটকের শুটিংয়ের জন্য কোথাও পাওয়া যাচ্ছিল না বড় আকারের বোয়াল। রাজধানীর কারওয়ান বাজার, মালিবাগ বাজারসহ শুটিং স্পট উত্তরার বাজারগুলোতেও মাছ খোঁজা হয়েছিল। কিন্তু বড় আকারের বোয়াল নেই কোথাও। চিন্তিত পরিচালক সম্রাট জাহাঙ্গীর ঘটনা জানান নাটকের অভিনেতা নিলয়কে। পরিচিত জায়গাগুলোতে খোঁজখবর নেওয়ার পর নিলয় তাঁর বাবার সহযোগিতা চেয়েছেন। পরে আবদুল্লাহপুরের মাছের আড়ত থেকে নিলয়ের বাবা মাছ সংগ্রহ করে ছেলের শুটিং স্পটে পৌঁছে দেন। নিলয় বলেন, ‘বাবার অনেক জায়গা পরিচিত। বাজারও করেন নিজ হাতে। সে জন্যই বাবাকে বলেছিলাম। পরে জানতে পারলাম বাবা নিজেই বাজারে চলে গেছেন। কিছুক্ষণ পর গাড়ির পেছনে মাছ নিয়ে শুটিং স্পটে হাজির তিনি।’

বিজ্ঞাপন
default-image

গল্পের নায়ক বোয়াল। সবার চোখ সেটার দিকে। একটি করে দৃশ্য শেষ হতেই বোয়াল মাছটিকে রাখা হয় বরফের মধ্যে। বহু কষ্টে পাওয়া মাছটাকে পচতে দেওয়া চলবে না। শুটিং যতই এগিয়ে যায়, মাছটির প্রতি সবার আগ্রহ ততই বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে প্রশ্নটি করেই ফেলেন একজন, শুটিংয়ের পর মাছটির কী হবে? শুটিং দেখতে আসা মানুষের চোখে বিস্ময়। তাঁদের ভেতর ফিসফাস, সব মিলিয়ে বেশ উৎসবমুখর পরিবেশে হয়ে গেল নাটকটির শুটিং। সিদ্ধান্ত হয়, শুটিং শেষে মাছটি রান্না করে ইউনিটের সবাই মিলে খাবেন।

default-image
‘মাছটি খাব বলে সারা দিন খুব যত্ন করে রেখেছিলাম। সবার আগ্রহ ছিল, সব প্রস্তুতিও ছিল। কিন্তু শুটিং শেষ করতেই রাত দুটো বেজে যায়। তখন আর মাছ খাওয়ার আগ্রহ ছিল না। পরে সবাই মিলে মাছটি নিলয় ভাইয়ের বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছি।’
সম্রাট জাহাঙ্গীর

কিন্তু শেষ পর্যন্ত কী হলো সেই মাছের? পরিচালক বলেন, ‘মাছটি খাব বলে সারা দিন খুব যত্ন করে রেখেছিলাম। সবার আগ্রহ ছিল, সব প্রস্তুতিও ছিল। কিন্তু শুটিং শেষ করতেই রাত দুটো বেজে যায়। তখন আর মাছ খাওয়ার আগ্রহ ছিল না। পরে সবাই মিলে মাছটি নিলয় ভাইয়ের বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছি।’

নাটকের গল্পে মারজুক রাসেলের বোয়াল মাছের মাথা খেতে ইচ্ছে করে। নিলয়কে নিয়ে তিনি যান মাছ কিনতে। মাছ কিনে বাজার থেকে ফেরার পথে নিলয়কে ফোন করেন তাঁর প্রেমিকা। বিয়ের আসর থেকে পালিয়েছেন তিনি। নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে একটি ইউটিউব চ্যানেলে দেখা যাবে নাটকটি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0