অভিনয়শিল্পী শাহরিয়ার শুভ
অভিনয়শিল্পী শাহরিয়ার শুভসংগৃহীত

কাজে ফিরলেন টেলিভিশন নাটকের অভিনয়শিল্পী শাহরিয়ার শুভ। গতকাল প্রায় চার বছর পর নাটকের শুটিংয়ে যোগ দিয়েছেন তিনি। এখন থেকে নিয়মিত কাজ করতে চান বলে জানিয়েছেন এই অভিনয়শিল্পী। গত আগস্ট মাসে তাঁর কিছু ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। সেসব ছবিতে তাঁকে উদ্ভ্রান্তের মতো পথে পথে ঘুরতে দেখা গেছে, যেন কোনো মাদকাসক্ত ব্যক্তির চরিত্রে অভিনয় করছিলেন তিনি। পরে জানা যায়, তিনি সিনেমার শুটিং লোকেশনের খোঁজে গিয়ে প্রতারকের খপ্পরে পড়েছিলেন তিনি। সে সময় হঠাৎ আলোচনায় আসেন এই অভিনয়শিল্পী।

default-image
বিজ্ঞাপন
‘ফিরতে চাই বলে যখন সহযোগিতা চাইলাম, সবাই আমার দিকে সন্দেহের চোখে তাকাতে শুরু করল। তখন কষ্ট পেয়েছিলাম। পরে ভেবেছিলাম, একবারে ফিল্ম দিয়েই ফিরব। এখন মনে হচ্ছে, নাটক এবং ওয়েব সিরিজে অভিনয় করে ফিল্মের প্রস্তুতি নেওয়া দরকার।’
শাহরিয়ার শুভ
বিনোদন অঙ্গনের সহকর্মীদের ওপর কিছুটা বিরক্তি এবং হতাশা নিয়ে অভিনয় ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। এবার অভিমান ভেঙে কাজে ফিরলেন শুভ
default-image

অভিনয়ে কেন এই দীর্ঘ বিরতি? এমন প্রশ্নে শুভ জানান, বিনোদন অঙ্গনের সহকর্মীদের ওপর কিছুটা বিরক্তি এবং হতাশা নিয়ে অভিনয় ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। এবার অভিমান ভেঙে কাজে ফেরা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘জামালপুরে প্রতারণার খপ্পরে পড়েছিলাম। ভক্ত, সহকর্মী ও বন্ধুরা তখন আমার পাশে ছিলেন। মনে হলো, তাঁরা আবার আমাকে পর্দায় দেখতে চান। অনেকে কাজে ফেরার অনুরোধও করেছিলেন। তখন মনে হলো, মিডিয়ার কিছু মানুষের ওপর রাগ করে দর্শকদের বঞ্চিত করছি। মিডিয়ার মানুষের ওপর রাগ করে থাকা বোকামি।’

default-image

অভিনয় থেকে দূরে সরে থাকার পরও বেশ কয়েকবার ফিরতে চেয়েছিলেন শাহরিয়ার শুভ। সে সময় কারও সহযোগিতা পাননি। শুভ বলেন, ‘ফিরতে চাই বলে যখন সহযোগিতা চাইলাম, সবাই আমার দিকে সন্দেহের চোখে তাকাতে শুরু করল। তখন কষ্ট পেয়েছিলাম। পরে ভেবেছিলাম, একবারে ফিল্ম দিয়েই ফিরব। এখন মনে হচ্ছে, নাটক এবং ওয়েব সিরিজে অভিনয় করে ফিল্মের প্রস্তুতি নেওয়া দরকার।’

গত ২৫ অক্টোবর তিনি শেষ করেছেন ‘তুই আমার হবি’ নাটকের শুটিং। সম্প্রতি কাজ করেছেন ‘বউ না শাশুড়ি’ নাটকে। শিগগিরই ‘অফিসার রিটার্ন’ নামের একটি সিনেমার কাজ শুরু করবেন শুভ।

default-image

গত আগস্ট মাসের শেষের দিকে টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ‘অফিসার রিটার্ন’ ছবির শুটিং লোকেশন দেখতে যান শুভ। ফেরার আগে রাতে শেরপুরের ধনবাড়ি কেন্দুয়া বাজারে এক সহকর্মীর বাড়িতে রাত কাটাতে গিয়ে বিপাকে পড়েন তিনি। শুভর দাবি, সেখানকার স্থানীয় কতিপয় রাজনৈতিক কর্মী পরিকল্পনা করে চা ও পানির সঙ্গে কিছু মিশিয়ে তাঁকে খেতে দেন। এতে তিনি বিকারগ্রস্ত হয়ে উদ্ভ্রান্তের মতো রাস্তায় ঘুরতে থাকেন। শুভ জানিয়েছিলেন, একটি চক্র গাড়ি ছিনতাই করার জন্য তাঁকে চা ও পানিতে কিছু একটা মিশিয়ে খাইয়ে দেয়। ওই দ্রবণের প্রভাবে প্রায় ২০ ঘণ্টা তিনি স্বাভাবিক ছিলেন না। ভারসাম্য হারিয়ে পথে পথে ঘুরতে থাকেন। এ অবস্থায় তাঁর কিছু ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0