বিজ্ঞাপন

মৌটুসী বলেন, ‘এখন অভিনয়ের ধরন বদলে গেছে। টেলিভিশন, চলচ্চিত্র, ওয়েব প্ল্যাটফর্মে কাজের প্রতিযোগিতা বাড়ছে। ভবিষ্যতে টিকে থাকতে হলে সঠিক অভিনয়টা শিখতে হবে।

default-image

আমার অভিনয়ের অনেকেই প্রশংসা করেন কিন্তু আমার মনে হচ্ছিল আমার শেখার অনেক কিছুই বাকি রয়েছে। অভিনয় শিখতে করোনার এই সময়কে বেছে নিয়েছি। দেশের ‘বটতলা’, ‘প্রাচ্যনাট’, আমেরিকান কিছু ইনস্টিটিউটে নিয়মিত অনলাইনে কোর্স করছি। বুঝতে পারছি অভিনয়ে অনেক কিছুই জানার বাকি ছিল। পাশাপাশি অভিনয়ের ওপরে কিছু বই পড়ছি। নিজেকে ভাঙছি। নিজেকে ভালো করে ভেঙেই আবার ক্যামেরার সামনে নিয়মিত দাঁড়াব।’

default-image

দীর্ঘ সময় অভিনয়ে অনেকটাই একঘেয়েমি ছিল। মৌটুসী বলেন, ‘আমার তো অভিনয়ের কোনো ইচ্ছেই ছিল না। মোস্তফা সরয়ার ফারুকী আমাকে প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড় করিয়ে দেন। এরপর থেকে নির্মাতা ও সিনিয়র অভিনয়শিল্পীদের দেখে দেখে কাজ শিখেছি। তখন কাজে খুবই ব্যস্ত ছিলাম। এখন মনে হয় কোনো কিছু সঠিকভাবে না বুঝে করার চেয়ে না করাই ভালো।’

default-image

করোনার আগেও বেশ কিছু ধারাবাহিকে নিয়মিত অভিনয় করতেন। সেগুলো থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন মৌটুসী। তিনি বলেন, ‘পছন্দ না হলে কোনো চরিত্রেই আর অভিনয় করব না। এতে বছরে যদি একটা কাজ করি, তাহলেই আমি খুশি। কিন্তু মানহীন কাজ আমি করতে চাই না।’

default-image
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন