বিজ্ঞাপন

দীর্ঘ বিরতি দিয়ে ফেরা প্রসঙ্গে নির্মাতা সালাহউদ্দিন লাভলু জানান, গত বছর থেকেই তাঁরা ফেরার উদ্যোগ নিচ্ছিলেন। কিন্তু করোনার কারণে বারবার পেছাতে হচ্ছিল পরিকল্পনা। অবশেষে লকডাউনের আগেই শুটিং শেষ করেছেন ‘বায়ুচড়া’ নাটকের। ইতিমধ্যে নাটকটির প্রমোশনের সংলাপ দর্শকদের আগ্রহী করেছে।

default-image

নাটকটির নির্মাতা সালাহউদ্দিন লাভলু বলেন, ‘আমাদের জুটি নিয়ে দর্শকদের সব সময় একটা আগ্রহ দেখেছি। একসময় সারা দেশের মানুষ টেলিভিশনে নাটক দেখেছেন। অনেকে সিডি কিনি দেখেছেন। গত বছর করোনার লকডাউনের সময় থেকে লক্ষ করেছি, আমাদের আগের নাটকগুলোই ঘরবন্দী দর্শক টেলিভিশন ও ইউটিউবে আগের মতোই আগ্রহ নিয়ে দেখছেন। আমাদের বোঝাপড়া ভালো ছিল। আমরা সব সময়ই দর্শকদের নিখুঁত বিনোদন দেওয়ার চেষ্টা করেছি। তখন আমরা সবাই মিলি উদ্যোগ নিই আবার ফেরার।’

দলটি ‘সাকিন সারিসুরি’, ‘আলতা সুন্দরী’, ‘সার্ভিস হোল্ডার’, ‘গরুচোর’, ‘ঢোলের বাদ্য’, ‘ঘরকুটুম’, ‘পত্রমিতালি’সহ বেশ কিছু সফল নাটক উপহার দিয়েছে। এই সফলতাই চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল চিত্রনাট্যকার বৃন্দাবন দাসের কাছে।

default-image

দীর্ঘ এক দশকে দর্শকদের নাটক দেখার রুচি অনেক বদলে গেছে। নাটকের তরুণ দর্শক তৈরি হয়েছে। নাটকের গল্পেও এসেছে অনেক পরিবর্তন। সেগুলো মাথা নিয়েই তিনি লিখতে বসে যান নাটকটি। ‘বায়ুচড়া’ নিয়ে বৃন্দাবন দাস বলেন, ‘বাজেটসহ কিছু সংকটে আমাদের আগে কাজ করা হয়নি। এবার সেই গ্রামীণ পটভূমির নাটক দিয়েই ফিরছি। আমাদের জুটি হিসেবে দর্শক পছন্দ করেন। কিন্তু দীর্ঘদিন পরে দর্শক কীভাবে নেবেন, সেটাই ভাবছি। তবে এটুকু বলতে পারব, দর্শক একেবারেই হতাশ হবেন না।’
নতুন এই জুটির কাজ নিয়ে আশাবাদী অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। তিনি নাটকের শুটিং শুরু হওয়ার আগে জানিয়েছিলেন, বর্তমান নাটকের মানের যে অবস্থা, সেখানে দর্শক আগের নাটকগুলোই বারবার দেখছেন। এখন ভালো মানের নাটক কম তৈরি হচ্ছে। নাটকের মধ্য দিয়ে দর্শকদের সুস্থ বিনোদন দিতেই তাঁরা ফিরছেন।

তিনি বলেছিলেন, ‘আমরা একটা সময় যে ধরনের নাটক করেছিলাম, সেটাই পরে ভাঁড়ামির পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এর অনুকরণ এখনো চলছে। সেখান থেকে বের হয়ে দর্শকদের কীভাবে বিনোদন দেওয়া যায়, সেই চেষ্টাই আমাদের থাকবে।’

default-image

সালাহউদ্দিন লাভলু, বৃন্দাবন দাস ও চঞ্চল চৌধুরী—তিনজনকে প্রায়ই দর্শকদের কাছে শুনতে হতো, কেন আপনারা একসঙ্গে নাটক করছেন না। দেশ–বিদেশ থেকে সালাহউদ্দিন লাভলু প্রায়ই ভক্তদের ফোন পান। তাঁদের একটাই দাবি, আবার আপনারা একসঙ্গে নাটক নির্মাণ করেন। এ নিয়ে অনেক ভক্ত সালাহউদ্দিন লাভলু ও বৃন্দাবন দাসকে নানা হুমকি দিয়েছেন। এই চিত্রনাট্যকার এবং নির্মাতা মনে করেন, দর্শকদের ভালোবাসাতেই তাঁরা ফিরছেন। ‘বায়ুচড়া’ নাটকটি ঈদের দ্বিতীয় দিন ৭টা ৪০ মিনিটে চ্যানেল আইতে দেখা যাবে।

default-image
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন