default-image

পুতুল খেলার বয়সে খেলতে বসে পুতুলের পেট কেটে ফেলতেন তিনি। বাবা-মা ভাবতেন, তাঁদের মেয়ে বড় হয়ে নিশ্চয়ই চিকিৎসক হবে। একটু বড় হওয়ার পর আকাশে উড়োজাহাজের আওয়াজ শুনলেই দৌড়ে গিয়ে জানালায় উঁকি দিত। সবাই ভাবতেন, মেয়েটি পাইলট হবে। একসময় নিজের খেলার পুতুলের জন্য পোশাক বানানো শুরু হলো। এবার নিশ্চয়ই ডিজাইনার হবেন। না, এসব ভাবনার সঙ্গে আজকের সাফা কবিরের কোনো মিল নেই। কারণ, সাফা এখন ব্যস্ত বিনোদনের ভুবনে। বিজ্ঞাপনের মডেল হচ্ছেন, ছোট পর্দায় অভিনয় করছেন।
২২ ফেব্রুয়ারি দুপুরে রাজধানীর নিকেতনে এক আত্মীয়র বাসায় কথা হচ্ছিল সাফার সঙ্গে। সাফা বললেন, ‘মানুষের জীবনের পথ কখন কোন দিকে যাবে, বলা মুশকিল। কখনোই ভাবিনি মিডিয়াতে কাজ করব। কিন্তু আজ আমি বিনোদনজগতের একজন।’
সাফা জানান, এখন তাঁর সব ভাবনা নাটক আর বিজ্ঞাপনকে ঘিরে। বললেন, ‘ইচ্ছা করলেই এখান থেকে সরে যাওয়া যাবে না। আমি এখন এক নতুন জগতে আছি। বিজ্ঞাপনচিত্র বা নাটকে সবাই আমাকে দেখছেন, চিনছেন। কাজের প্রশংসা করছেন। ভালোবাসছেন। সম্মান করছেন। এক জীবনে এর চেয়ে আর কিছু পাওয়ার আছে?’
আজকের সাফার শুরুটা হয়েছিল কীভাবে? সাফা বললেন, ‘এ এক লম্বা গল্প। ২০১৩ সাল। সামনেই ভালোবাসা দিবস। আমার তখন দিনের বেশির ভাগ সময় কাটছে ফেসবুকে। নিজের সুন্দর সুন্দর ছবি তুলে ফেসবুকে দিচ্ছি। ওই ছবি দেখে একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে যোগাযোগ করা হয়। আদনান আল রাজীব এয়ারটেলের জন্য টেলিছবি তৈরি করবেন। নাম অ্যাট এইটটিন: অল টাইম দৌড়ের উপর। এই টেলিছবিতে অভিনয়ের জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয় আমাকে।’
অভিনয়! হঠাৎ এই প্রস্তাবে রোমাঞ্চিত হন সাফা। মা-বাবাও রাজি। সাফা বলেন, ‘টেলিভিশনে অভিনয় করব। সবাই আমাকে দেখবে। ওহ! খুশিতেই রাজি হয়ে যাই।’
অ্যাট এইটটিন: অল টাইম দৌড়ের উপর টেলিছবিতে সাফা অভিনয় করেছেন অ্যালেন শুভ্রর বিপরীতে। সাফাকে ডাকা হতো ‘চিংকু মেয়ে’ বলে। টেলিছবিটি প্রচার হওয়ার পর ‘চিংকু মেয়ে’ ডাকটি জনপ্রিয়তা পায়।
এর পরই এয়ারটেলের বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হওয়ার সুযোগ পান সাফা। এবার সমান তালে নাটক আর বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করার প্রস্তাব পান। একে একে অভিনয় করেন এক ঘণ্টার নাটক শহরের দেওয়ালজুড়ে ভালোবাসা, ভালোবাসা ওয়ান ওয়ান, অতঃপর আমরা, না-পুরুষ, একলা মেয়ে। ধারাবাহিক নাটক রেদওয়ান রনির ভার্সিটি, ইমরাউল রাফাতের রাব্বু ভাইয়ের বউ, সাফায়েত মনসুর রানার ইচ্ছে ঘুড়িতে।
এখন অভিনয় করছেন রেদওয়ান রনির ঝালমুড়ি আর জয়ন্ত রোজারিওর থ্রিজি নামে দুটি ধারাবাহিকে।
কাজ করেছেন কয়েকটি বিজ্ঞাপনচিত্রে।
উপস্থাপনাও করছেন সাফা। মিসটেক নামে আরটিভির একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করছেন। বললেন, ‘উপস্থাপনার কাজটি শখের বশেই করছি।’
সময় পেলেই সাফা সিনেমা দেখেন। আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে অভিনয় করেন। নিজেই নিজের ভুলগুলো শোধরানোর চেষ্টা করেন। সামনে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখেন। এখন স্বপ্ন দেখেন, সফল আর জনপ্রিয় শিল্পী হবেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন