default-image

ম্যারাথন দৌড়ের প্রচলন হয়েছিল প্রাচীন সভ্যতা সুমেরে। সুমেরে রাজা শুলগি ছিলেন একজন ক্রীড়ামনস্ক মানুষ। তিনি ছিলেন দারুণ এক ক্রীড়াবিদও। সাঁতার, দৌড় ইত্যাদি খেলায় ছিল তাঁর অসাধারণ আগ্রহ। হালে যাকে ম্যারাথন বলে, সেই দীর্ঘ পরিসরের দৌড়ের পুরধাও তিনি। শুলগি একবার সিদ্ধান্ত নেন যে তিনি সুমেরের নিপ্পুর নামের একটি জায়গা থেকে দৌড়ে দক্ষিণ মেসোপটেমিয়ায় যাবেন। এই দুই জায়গার মাঝের দূরত্ব ছিল প্রায় ১৭০ কিলোমিটার। সুমেরের জনগণের আনন্দ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শুলগি তাঁর দৌড়টি শেষ করেন।
প্রাচীনকালে বিভিন্ন রাজ্যের বার্তাবাহকদের মধ্যে দীর্ঘ পরিসরে দৌড়ে যাওয়ার ক্ষমতা থাকতে হতো। এক রাজ্য থেকে একটি বার্তা নিয়ে দৌড়ে আরেক রাজ্যে যাওয়ার সময় বার্তাবাহকদের দীর্ঘ পথ অতিক্রম করতে হতো। ইতিহাসবিদেরা জানান, বার্তাবাহকদের এই দীর্ঘ দৌড়ই ম্যারাথন নামের দৌড় প্রতিযোগিতার ভাবনার বীজ বপন করে দিয়ে গেছে।
দ্য পেঙ্গুইন বুক অব ফার্স্ট অবলম্বনে নাইর ইকবাল

বিজ্ঞাপন
ফিচার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন