default-image

সংগীতশিল্পী শাকিলা জাফর। ভালোবাসেন ঘর গোছাতে। পছন্দ করেন শাড়ি পরতে। আজ থাকছে তাঁর স্টাইল।
বাড়ির সদর দরজা খুলতেই তাজা ফুলের গন্ধ পাওয়া গেল। হবে না কেন, বাসাজুড়ে ফুলদানিতে সাজানো গ্ল্যাডিওলাস, রজনীগন্ধা—হরেক রকমের ফুল। সংগীতশিল্পী শাকিলা জাফর ফুলগুলোর দিকে তাকালেন। চোখে-মুখে আনন্দের ঝিলিক। বললেন, ‘ফুল দিয়ে ঘর সাজানোটা আমার খুব প্রিয় কাজ। ফুল খুব ভালোবাসি।’
ঘর সাজানো যে প্রিয়, সেটা বোঝা গেল কথায় কথায়। দেখা যায়, কিছুদিন পর পর বাসার আসবাবপত্রের জায়গা বদলে দেন। চিত্রকর্ম ভালোবাসেন। সে জন্য বাসার দেয়ালে ঝুলছে নানা চিত্রকর্ম। কোথাও ঘুরতে গেলে অ্যান্টিক জিনিসপত্র কেনা চাই-ই চাই।
এই সংগীতশিল্পীর দিন শুরু হয় সকালে ঘণ্টা খানেক ব্যায়াম করে। সাঁতার কাটা, হাঁটাহাঁটি আর খালি হাতে কিছু ব্যায়ামের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে সেই সময়টা। এরপর গানের রেওয়াজ করেন। রেওয়াজের পর নাশতা। এবার পালা ঘর গোছানোর। আর কাজ থাকলে বেরিয়ে পড়েন শাকিলা জাফর।
দুপুরে হালকা খাবার খান শাকিলা জাফর। বললেন, ‘সময় পেলে ১৫ মিনিটের একটা ঘুম দিই দুপুরে খাওয়ার পর। বিকেলটা তোলা থাকে রেকর্ডিংসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য। অনুষ্ঠান না থাকলে পুরো সময়টুকু নিজের বা পরিবারের জন্য বরাদ্দ।’
ভোজনপ্রিয় শাকিলা খেতে ভালোবাসেন প্রায় সবকিছুই। মাছ থাকলে তো কথাই নেই। ভাত, গরু বা খাসির মাংস থেকে দূরে থাকতে চেষ্টা করেন, কিন্তু কাচ্চি বিরিয়ানি সামনে এলে নাকি লোভ সংবরণ করতে পারেন না। নিজে রান্না করতে বেশ ভালোবাসেন। তাঁর হাতের নারকেলের দুধে হাঁসের মাংস রান্না, সরষে ইলিশ আর মুরগির কোর্মা নাকি অনেক সুস্বাদু হয়। ছেলে মুফরাদের প্রিয় খাবার বলে কথা।

default-image

পরিপাটি পোশাক পরতে পছন্দ করেন শাকিলা জাফর। বাসায় টপ, জিনস, ফতুয়া, সালোয়ার-কামিজ পরেন। তবে উৎসব বা কোনো অনুষ্ঠানে নিজেকে দেশি শাড়িতে সাজাতেই পছন্দ করেন। আড়ং, অরণ্য, টাঙ্গাইল শাড়ি কুটির, যাত্রাসহ নামকরা প্রতিষ্ঠান থেকে নিজের পোশাক সংগ্রহ করেন। পোশাকের ক্ষেত্রে সব ধরনের হালকা রং তার পছন্দ।
ব্যস্ত জীবনের ফাঁকে যখন অবসরের দেখা মেলে, তখন ঘটা করেই সিনেমা দেখেন, গান শোনেন। আবার কখনো একা একাই সময় কাটান। জীবন থেকে নেওয়া, প্রিটি উইমেন, উমরাও জান তাঁর পছন্দের সিনেমা। সমরেশ মজুমদারের সাতকাহন পছন্দের উপন্যাস।
সাধারণত হালকা গন্ধের সুগন্ধিই ব্যবহার করেন শাকিলা জাফর। প্রিয় সুগন্ধির মধ্যে রয়েছে হ্যাভক, জেডর, পয়েমে ব্র্যান্ড। তবে হ্যাভক তাঁর সবচেয়ে প্রিয়।
শাকিলা জাফর তাঁর চুলের সাজটাকে অনেকটা নিজস্ব ব্র্যান্ডিংয়ের পর্যায়ে নিয়ে গেছেন। সামনের দিকটা একটু উঁচু করে পেছনে চুল ছেড়ে দিয়ে সাজতেই বেশি দেখা যায় তাঁকে। বললেন, ‘আমার চুল আসলে একটু পাতলা। বেশির ভাগ সময়ই খেয়াল করেছি, কোনো প্রোগ্রামে কিংবা শুটিংয়ে গেলে লাইটের তাপের কারণে আমি যখন ঘেমে যাই, তখন আমার চুলগুলোও ঘেমে গিয়ে মাথার ওপর ফ্ল্যাট হয়ে বসে যায়। ব্যাপারটা মাথায় রেখেই আমি আমার হেয়ার ড্রেসারকে দিয়ে এমন চুলের স্টাইল করে নিই।’

বিজ্ঞাপন
প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন