বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ছোট্ট সনি

তোকে অনেক দিন ধরে দেখিনি। হয়তো এত দিনে অনেক বড়ে হয়ে গেছিস। আমাকে তোর মনে পড়ে কি না, জানি না, তবে তোকে আমি ভুলতে পারি না। তোর অমায়িক আচরণ আমাকে মুগ্ধ করেছে। খুব অল্প দিনের পরিচয়ে এত ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আগে কখনো কারও সঙ্গে হয়নি। যেদিন তুই চলে গেলি সেদিন বুঝতে পারলাম মনের কত গভীরে তুই জায়গায় করে নিয়েছিলি।

তোর ভাইয়া ডাক, দুষ্টু-মিষ্টি হাসি, খুনসুটি সবকিছু স্মৃতিপটে ভেসে উঠছিল। একসঙ্গে কাটানো সেই স্বপ্নিল দিনগুলো খুব মনে পড়ে। বিকেলে মাঠে ব্যাট–বল অনুশীলন করে সন্ধ্যায় আমার পাশে বসে সফলতা-ব্যর্থতার ফিরিস্তি তুলে ধরতি। বড় ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন দেখতি। আর আমি তোর মাথায় হাত বুলিয়ে, গাল টেনে আশ্বাস দিতাম, চালিয়ে যা। সময়ের স্রোতে কোথায় যে হারিয়ে গেল রঙিন দিনগুলো।

ইলিয়াছ আখন্দ, নন্দীগ্রাম, বগুড়া

আকাশের মনটা আজ ভালো নেই

আকাশের মনটা আজ খুব খারাপ। দেখেই বোঝা যাচ্ছে, কোনোভাবেই তার মনটা ভালো যাচ্ছে না। সকাল থেকে খুব মুখ কালো করে বসেছিল, তারপর সে কী কান্না! সারা দিন ধরে গুমরে গুমরে জোরে, মাঝারিভাবে কাঁদল সে।

এই আকাশের সঙ্গে আমারও অনেক মিল আছে, প্রায় দিন মন খারাপ হলে সেদিন আর মনটা ভালো হয় না আমার। কোথায় জানি একটা হাহাকার কাজ করে। এই হাহাকার কিসের জন্য? কাউকে হারানোর ভয়ে নাকি কোনো কিছু না পাওয়ার বেদনায়।

শরীফ ইমরান, হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর

লেখা পাঠানোর ঠিকানা

অধুনা, প্রথম আলো, প্রগতি ইনস্যুরেন্স ভবন, ২০–২১ কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected], ফেসবুক: facebook.com/adhuna.PA খামের ওপর ও ই-মেইলের subject–এ লিখুন ‘মনের বাক্স’

প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন