default-image

আমার বয়স যখন ৮-৯ বছর, তখন থেকে আমার মাথার চুল পাকতে শুরু করে। এখন ১৯ বছরে এসে মাথার তিন ভাগের এক ভাগ চুল সাদা হয়ে গেছে। মাথাব্যথা তো প্রায়ই হচ্ছে। রাতে ঠিকমতো ঘুমাতে পারি না। অল্পতেই হতাশ হয়ে যাই। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় কী? কোনো পুষ্টিকর খাবার খেয়ে কি এটা কমানো যায়?

মুহাম্মদ শরিফ, চট্টগ্রাম।

প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন বারডেম হাসপাতালের প্রধান পুষ্টিবিদ ও বিভাগীয় প্রধান শামছুন্নাহার নাহিদ

চুল পাকার অনেক কারণ আছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো—

  • ধূমপান: কম বয়স থেকে ধূমপান করা।

  • মানসিক চাপ: অকারণে, সব সময় দুশ্চিন্তা করলে বা মানসিক চাপে থাকলে অল্প বয়সেই চুল পাকে।

  • ভেজাল খাবার খাওয়া: অস্বাস্থ্যকর খাবার, বাসি-পচা খাবার, মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার, অতিরিক্ত জাঙ্ক ফুড, প্রিজারভেটিভ যুক্ত খাবার খাওয়া চুল পাকার কারণ।

  • পুষ্টির অভাব: নিয়মিত ভিটামিনযুক্ত খাবার না খেলে যেমন ভিটামিন বি-৬,‌ বি-১২ ইত্যাদি। বায়োটিন ও ফলিক অ্যাসিড কম হওয়ায় চুলে গোড়ায় পুষ্টির অভাব হয়, সে কারণে চুল পাকে।

  • বৈদ্যুতিক হেয়ার ড্রায়ার: কম সময়ে চুল শুকানোর জন্য হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করার ফলে চুলের শক্তি ধীরে ধীরে কমে গিয়ে চুল পাকা শুরু করে। তাই হেয়ার ড্রায়ার এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

  • রাসায়নিক: চুলের ভাঁজ ও সৌন্দর্য ঠিক রাখার জন্য বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করেন অনেকে। এতে চুলের ক্ষতি হয়। ফলে চুল পড়তে থাকে এবং পাকে।

  • ঘুম কম হওয়া: রাতে নিয়মিত ও পরিমিত (কমপক্ষে ৫-৬ ঘণ্টা) ঘুম না হওয়ার কারণে চুল পাকে।

  • জিনগত (জেনেটিক): হরমোন সমস্যা বা বংশগত কারণে অল্প বয়সে অনেকের চুল পাকে।

মূলত আমাদের চুলে কালো রং আসে মেলানিন নামের একটি রঞ্জক কণিকা থেকে। যখন শরীর এই পদার্থ উৎপাদন বন্ধ করে দেয়, তখন চুলে রংহীন বা হলদেটে হয়ে যায় অর্থাৎ পেকে যায়। মুলত চুল তৈরি হয় কেরাটিন নামের একটি প্রোটিন দিয়ে, তা হলদেটে। মেলানিন না থাকার কারণে পাকা চুল এ রকম হলদে দেখায়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে প্রতিদিন দুধ, ডিম, মাংস, দুধের তৈরি খাবার, শাকসবজি, বাদাম, মাশরুম, ডাল, বিচি জাতীয় খাবার, ভিটামিন-সি (খাবারের সঙ্গে লেবু) এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খেতে হবে এবং চুল পেকে যাওয়ার কারণগুলো দূর করলে এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0