বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হলাসন

যেভাবে করবেন: চিত হয়ে শুয়ে পড়ুন। এবার শ্বাস ভেতরে টেনে পা ধীরে ধীরে ওপরে ওঠান। প্রথমে ৩০ ডিগ্রি, পরে ৬০ ডিগ্রি এবং শেষে ৯০ ডিগ্রিতে ওপরের দিকে ওঠানোর পর পা দুটিকে মাথার পেছনের দিকে এবং পিঠ ওপরের দিকে তুলে শ্বাস ছাড়তে ছাড়তে নিয়ে যান। পা দুটি টান টান করে মাথার পেছন দিক মাটিতে লাগান, শ্বাসপ্রশ্বাসের গতি স্বাভাবিক রাখুন। সুবিধার জন্য হাত কোমরের পেছনে লাগাতে পারেন। ফিরে আসার সময় কোমরটা ভালোভাবে ধরে খুব ধীরে ধীরে পা ওপরে তুলুন। এবার আস্তে আস্তে পিঠের ওপর ভর করে কোমর মাটিতে লাগানোর পর পা দুটি মাটিতে নামান।

সময়: ৩০ থেকে ৬০ সেকেন্ড পর্যন্ত বা তার বেশি সময় আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী করতে পারেন। তিন থেকে পাঁচবার করতে পারেন।

সতর্কতা: ঘাড়ে ব্যথা, উচ্চ রক্তচাপ, মেরুদণ্ডের রোগী, স্লিপ ডিস্ক হলে এ আসন করবেন না। আসনটি করার পরপরই প্রতিবার উষ্ট্রাসন বা অর্ধচন্দ্রাসন করবেন, তাহলে ঘাড়ে টান পড়বে না।

খেয়াল রাখুন

প্রতিদিন নিয়মিত যোগাভ্যাসের পাশাপাশি যেসব বিষয় মনে রাখতে হবে—

চুলে নিয়মিত খাঁটি নারকেল তেল ব্যবহার করুন। বাজার থেকে কেনা কোনো সুগন্ধিযুক্ত তেল ব্যবহার করবেন না। একমুঠ মেথি রাতে ভিজিয়ে সকালে সেটা ব্লেন্ডারে পেস্ট করুন। এরপর এর মধ্যে একটা লেবুর রস ও এক টেবিল চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে চুলে এক ঘণ্টা দিয়ে রেখে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। ওই দিন শ্যাম্পু না করে পরের দিন করুন। এটা করুন সপ্তাহে অন্তত একবার। প্রতিদিন মৌসুমি ফলমূল ও শাকসবজি অবশ্যই খাবেন। দুই হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি ছাড়া বাকি চারটা আঙুলের নখ পরস্পরের সঙ্গে পাঁচ মিনিট টানা ঘষুন। খালি পেটে করবেন, দিনে দুবার, একে বালায়াম বলে।

প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন