বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তোমাকেই ভালোবাসি বহুরূপে বহুবার

এই তো দুই মাস আগের কথা। প্রথম দেখাতেই তোমার প্রেমে পড়ে যাই। ধীরে ধীরে ভালোবাসাটা আরও বাড়তে থাকে। তোমাকে খুব দেখতে ইচ্ছা করে। কিন্তু তুমি থাকো ঢাকায়, আর আমি কুমিল্লায়। একদিন হঠাৎ কাউকে কিছু না বলে একা সাহস করে ঢাকায় চলে আসি। ঢাকার অচেনা রাস্তায় খুঁজে বেড়াই তোমাকে। কত মেসেজ দিয়েছি ফেসবুকে, ইনস্টাগ্রামে। তুমি তো দেখোনি। জানি না, কোনোদিন কথা হবে কি না সরাসরি। জানি না, মনের ভেতর পুষে রাখা কথাগুলি কোনোদিন বলতে পারব কি না তোমায়। তবু দূর থেকে হলেও বলব, আমি তোমায় ভালোবাসি।

হোসাইন জাহিদ, কুমিল্লা

তোমাকে এখনো মিস করি

আচ্ছা, অতীতের স্মৃতি কি তোমার আজও মনে পড়ে? সেই রেললাইনে বসে প্রেম করার দিনগুলো কি মনে পড়ে? আমার নিয়মিত সেসব কথা মনে পড়ে, আর তখন চোখের জল ধরে রাখতে পারি না। তখন ভাগ্যকে জিজ্ঞেস করি, তোমাকে কেন আমার কাছ থেকে নিয়ে গেছে? কান্নাকাটি করে মনটা ভীষণ খারাপ হয়ে যায়। জানো, এখন মন খারাপের কথাগুলো কারও কাছে বলতে পারি না। তুমি চলে যাওয়ার পর আমার জীবনটা একদম নষ্ট হয়ে গেছে। কেউ বুঝতে চায় না আমাকে। আমার মনের কথাগুলো তুমি ছাড়া কেউ বোঝে না। তোমার মতো করে কেউ জিজ্ঞেস করে না, ‘তোমার কী হয়েছে জান?’

আচ্ছা, আমার জম্মদিনের তারিখটাও কি ভুলে গেছ? এখনো অক্টোবরের ২১ তারিখ আসে। কিন্তু রাত ১২.০১ মিনিটে নিয়ম করে কেউ শুভেচ্ছা জানায় না। আচ্ছা, আমদের কি আবার দেখা হবে, কোনো চেনা–অচেনা রাস্তায়?

তোমার বিয়ে ঠিক হওয়ার পর থেকে আজ পর্যন্ত আমার মুঠোফোনটা একবারের জন্যও বন্ধ করিনি। আমার শুধুই মনে হতো যে তুমি ফোন করবে। আসলে অনেক বোকা ছিলাম আমি, তাই না? অনেক কথা জমে আছে, কিন্তু বলা হয় না। ভালো থেকো প্রিয়, ভালো রেখো তোমার জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা মানুষগুলোকে।

নুর হাসান

লেখা পাঠানোর ঠিকানা

অধুনা, প্রথম আলো, প্রগতি ইনস্যুরেন্স ভবন, ২০–২১ কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected], ফেসবুক: facebook.com/adhuna.PA খামের ওপর

ও ই-মেইলের subject–এ লিখুন ‘মনের বাক্স’

প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন