default-image

বাংলাদেশের দুই তরুণের হাত ধরে

ফেসবুকের এই এআর ইফেক্ট তৈরি হয়েছে বাংলাদেশের দুই তরুণের হাত ধরে। ফেসবুক চেয়েছে স্থানীয় শিল্পী ও প্রোগ্রামাররাই এটি তৈরি করুক। ইফেক্টের জন্য ছবি এঁকেছেন চিত্রশিল্পী ও প্রথম আলোর স্পেশালিস্ট, ইলাস্ট্রেশন আরাফাত করিম। আর প্রোগ্রামিং করে ইফেক্টটি বানিয়েছেন তরুণ প্রোগ্রমার ও আই–বস লিমিটেডের ইউআই/ইউএক্স ডিজাইনার ইশরাত জাহান। এই দুজনের হাত ধরে ফেসবুকে মূর্ত হয়েছে রঙিন পয়লা বৈশাখ।

ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামের এই এআর ইফেক্টে ঘুড়ি, টেপা পুতুল, মাছ, প্যাঁচা, ময়ূর, মঙ্গল শোভাযাত্রার নানা রকম প্ল্যাকার্ড যেমন থাকছে, তেমনি থাকছে মুখচিত্র আঁকার জন্য আলপনা, লাল–সবুজ পতাকা ইত্যাদি। আরাফাত করিম জানালেন, তাঁর কাজ দেখে ফেসবুক থেকে আহ্বান জানানো হয়। এরপর নানা রকম উপাদান এঁকে তিনি পাঠান। ফেসবুকের অনুমোদন পাওয়ার পর নকশাগুলো চূড়ান্ত করেন। আরাফাত বললেন, ‘সময় একেবারেই কম ছিল, তাই বেশির ভাগ ছবিই দ্বিমাত্রিক। কিছু উপকরণে ত্রিমাত্রিক (থ্রিডি) আবহ দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আমাদের পয়লা বৈশাখ উৎসবের আলপনা বা ছবি, মুখোশ ইত্যাদি হাতে আঁকা হয়। অনেক সময় কাঁচা হাতের ছোঁয়াও টের পাওয়া যায়। সেই বৈশিষ্ট্য ধরে রাখার চেষ্টা করেছি। তবে বাংলাদেশের জন্য প্রথম এমন কিছু হচ্ছে এটাই বড় ব্যাপার।’

সময়স্বল্পতার কথা ইশরাতের মুখেও। বললেন, ‘ফেসবুকে, ইনস্টাগ্রামে এমন ফিল্টার আমি নিজেও ব্যবহার করেছি। একজনের কাছে শুনলাম এ রকম ফিল্টার, ইফেক্ট নিজেও তৈরি করা যায়। এবারে বাংলা নববর্ষে প্রথমবারের মতো ফেসবুকের এআর ইফেক্ট তৈরি করতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। আরেকটু সময় পেলে আরও ভালো কাজ করতে পারেন।’ কম্পিউটার বিজ্ঞানে স্নাতক ইশরাত জাহান নিজে নিজে অ্যাপ তৈরি, ফিল্টার বানানো শিখেছেন।

ইশরাত জানালেন, বেশির ভাগ উপকরণই দ্বিমাত্রিক, তবে পুতুল এবং অন্য কয়েকটি উপাদানে ত্রিমাত্রিক আবহ আনা হয়েছে। ইশরাত বললেন, ‘ছবিতে এই ইফেক্টগুলো যোগ করলে মনে হবে, আপনি যেন বাইরে গিয়েই পয়লা বৈশাখ উদ্‌যাপন করছেন। করোনাকাল তাই মাস্কও স্থান পেয়েছেন আমাদের ইফেক্টে। সেই মাস্কে বৈশাখী নকশা। মাস্কটা থ্রিডি করা হয়েছে, মুখ নাড়াচাড়ার সঙ্গে মিল রেখে।’ ইশরাত ফেসবুক ডেভেলপার গ্রুপের সঙ্গে যুক্ত। ফেসবুকের স্পার্ক এআর অ্যাপের মাধ্যমে এই ইফেক্ট তৈরি করেছেন। স্পার্ক এআর দলের সঙ্গেও যুক্ত হয়েছেন। তাঁদের বেশ কিছু নমুনা পাঠাতে হয়েছে, ফেসবুকের অনুমোদনের পর ইফেক্ট চূড়ান্ত হয়েছে।

এবারের বাংলা নববর্ষ উদ্‌যাপনে ফেসবুকের এই ইফেক্ট ভিন্ন মাত্রা দেবে, নিঃসন্দেহে। ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রাম স্টোরি দেখে মনে হবে আবার আমরা মাতোয়ারা বৈশাখ উদ্‌যাপনে। এ জন্য স্মার্টফোনে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাপ দুটি ইনস্টল থাকতে হবে। আজ যেকোনো ছবির পোস্ট বা স্টোরি দিতে গেলে এই ইফেক্ট ব্যবহারের সুবিধাটা চলে আসবে। তখন নিজের পছন্দের ছবি বেছে নিলে সবাইকে জানিয়ে দিতে পারেন—শুভ নববর্ষ।

বিজ্ঞাপন
প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন