পাঠকের প্রশ্ন: ডায়েট

ডায়েট, ব্যায়াম ও ওজন কমানো–বাড়ানো নিয়ে পাঠকদের নির্বাচিত প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন বারডেম হাসপাতালের প্রধান পুষ্টিবিদ ও বিভাগীয় প্রধান শামছুন্নাহার নাহিদ

বিজ্ঞাপন
default-image

আমার বয়স ১৬ বছর। প্রচুর চুল পড়ে। চুলের অবস্থা খুবই নাজুক। চুল ধরলেই চুল পড়ে যায়। আমার অনেক ঘন চুল ছিল, যা এখন একদম পাতলা হয়ে গেছে। চুল আঁচড়ানোর সময় মনে হয় সব চুলই যেন পড়ে যাবে। এত কম বয়সে কেন আমার চুল এভাবে পড়ে যাচ্ছে? চুল পড়া বন্ধ করার কোনো কার্যকরী উপায় আছে কি? আমি মোটামুটি সব ধরনের পুষ্টি উপাদানই গ্রহণ করি। একবার ডাক্তারও দেখিয়েছি, কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। বাবা-চাচার চুল এখনো আছে, কিন্তু আমার চুল পড়ে যাচ্ছে।–নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

উত্তর: মানুষের চুল পড়ার অনেক কারণ থাকে। বেশি হারে চুল পড়ার প্রধান কারণ হলো কেরাটিনের মৃত কোষ। প্রতিদিন ৭০–১০০টি চুল পড়া স্বাভাবিক, পাশাপাশি নতুন চুলও গজায়। ফলে চুলের কমতি বোঝা যায় না। চুল পড়াকে বলা হয় এন্ডোজেনিক এলোপেসিয়া, যার মূল কারণ ডিএইচটি নামের একটি হরমোন। এটা বেড়ে গেলেই চুলে রক্ত সঞ্চালন কমে গিয়ে চুল পড়তে শুরু করে। এ ছাড়া ভিটামিন বায়োটিনের অভাবে খাবারে বেশি লবণ মাথার ত্বকের কোষে পানি জমিয়ে চুলের গোড়া নরম করে চুল পড়তে সাহায্য করে। আবার কিছু ওষুধ (বিষণ্নতা, আর্থ্রাইটিস ইত্যাদি রোগের), কিছু হেয়ারস্টাইলের (হট অয়েল) কারণেও চুল পড়তে থাকে। অন্যদিকে চুলের ৯১ শতাংশ প্রোটিন হলো কেরাটিন। কেরাটিনাইজেশন পদ্ধতিতে চুলের গোড়া থেকে পুষ্টি নিয়ে চুলের বৃদ্ধি হয় এবং পূর্ণতা পায় চুল। তখনই চুলের নিউক্লিয়াস ভেঙে যায়। ফলে চুল আর লম্বা হতে পারে না। এ জন্য চুল পড়া রোধে সুষম খাদ্যাভ্যাস ও স্বাস্থ্যসম্বত জীবনযাপনের অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যেসব খাবার খেতে হবে

  • পর্যাপ্ত পরিমাণে আমিষ। যেমন মাংস, ডিম, যা প্রোটিন, বায়োটিনসমৃদ্ধ। এই বায়োটিন থেকে চুলের প্রোটিন কেরাটিন তৈরি করে চুল লম্বা করতে সাহায্য করে।

  • তৈলাক্ত মাছ, যাতে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩ এবং ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন-ই থাকে, যা চুলের ঘনত্ব বাড়াতে সাহায্য করে।

  • ভিটামিন-এ, বেটা-কেরাটিনসমৃদ্ধ খাবার, যা ‘সিবাম’ তৈরিতে সাহায্য করে। এই সিবাম চুলের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে সাহায্য করে (যেমন মিষ্টি আলু, পালংশাক ইত্যাদি)।

  • ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে, যা চুলের স্টেনডেন ধরে রাখার সহকারী কোলাজেন তৈরিতে সহায়তা করে।

  • বাদাম, বিচিজাতীয়, সয়াবিন বীজ অর্থাৎ ভিটামিন-বি, ই, জিংক, অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট ও বিশেষ করে স্পারমিডিন আছে এমন খাবার লম্বা চুলের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভেষজ তেল ব্যবহার করা

নারকেল তেল, আমন্ড তেল, জলপাই তেল, মিনারেল এবং বাদাম তেল চুলের পুষ্টি ও স্বাস্থ্যের জন্য জরুরি।

বাইরের যত্ন

  • চুল প্রতিদিন শ্যাম্পু করবেন না।

  • প্রতিদিন চুল ধুয়ে ভালোভাবে শুকিয়ে নিতে হবে।

  • চুলে রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে বেশি করে চুল আঁচড়াতে হবে।

  • ১০-১২ সপ্তাহ পরপর ভেঙে যাওয়া চুলের আগা ছেঁটে বা কেটে ফেলতে হবে।

  • চাপ কমাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে।

  • এরপরও যদি সমাধান না হয়, ডার্মাটোলজিস্টের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
পাঠকের প্রশ্ন পাঠানো যাবে ই–মেইলে, ডাকে এবং প্রঅধুনার ফেসবুক পেজের ইনবক্সে। ই–মেইল ঠিকানা: adhuna@prothomalo.com (সাবজেক্ট হিসেবে লিখুন ‘পাঠকের প্রশ্ন’) ডাক ঠিকানা: প্র অধুনা, প্রথম আলো, প্রগতি ইনস্যুরেন্স ভবন ২০–২১ কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫। (খামের ওপর লিখুন ‘পাঠকের প্রশ্ন’) ফেসবুকপেজ: fb.com/Adhuna.PA
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন