default-image

নকল শাবনূরে বিব্রত আসল শাবনূর।’ প্রথম আলো অনলাইনে এমন একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে ৯ জানুয়ারি। সে সংবাদের সারাংশ হলো, ভক্তদের জন্য ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্ট খুলেছেন চিত্রনায়িকা শাবনূর। তবে দেখলেন, আগে থেকেই তাঁর নামে একাধিক নকল অ্যাকাউন্ট আছে। সেগুলোতে অনুসারীদের সংখ্যা একদম কম নয়। সেখানে নিয়মিত লেখা এবং ছবিও পোস্ট করা হচ্ছে। এতে ভক্তরা ভাবছেন, শাবনূরের পক্ষ থেকেই বুঝি পোস্ট করা হচ্ছে। এমনকি তাঁর হয়ে অ্যাকাউন্টগুলো থেকে অর্থও চাওয়া হয়েছে। অথচ এর বিন্দুবিসর্গও তিনি জানতেন না।

ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্ট খোলার পর চিত্রনায়ক শাকিব খানও পড়েছিলেন বিপাকে। তাঁর নামে তৈরি নকল অ্যাকাউন্টগুলো উল্টো রিপোর্ট করে আসল শাকিব খানের অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় করে দিয়েছিল।

জনপ্রিয় তারকারাই যে কেবল ফেসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেক অ্যাকাউন্টের খপ্পরে পড়েন, ব্যাপারটা কিন্তু তা নয়। সাধারণ মানুষজনকে হয়রানি করতে এমন ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরির ঘটনা প্রায়ই দেখা যাচ্ছে। কারও নামে ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে তার কাছের মানুষদের কাছে অর্থ চাওয়ার মতো প্রতারণাও করছে দুর্বৃত্তরা। এগুলো শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ভুক্তভোগীরা আইনি সহায়তা চাইতে পারেন। প্রয়োজনে আইসিটি আইনে মামলা করতে পারেন। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে (বিটিআরসি) অভিযোগ জানালেও মিলতে পারে সমাধান।

বিজ্ঞাপন

নিজেও এগোতে পারেন সমাধানের পথে

আইনি সহায়তার পথ তো খোলা আছেই। আবার ভুক্তভোগী নিজেও বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়ে সমাধানের পথে এগোতে পারেন। দিন কয়েক আগের এক উদাহরণ দেওয়া যেতে পারে। ফেসবুকে মনিরুল ইসলাম নামের এক ব্যবহারকারী স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছেন, তাঁর বোন রাশিদা পারভীনের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়েছে। যে হ্যাক করেছে, সে রাশিদা পারভীনের নামে তাঁর বন্ধুদের কাছে টাকা চাচ্ছে। একটি ফোন নম্বর দিয়ে নগদ ও বিকাশের মতো সেবার মাধ্যমে টাকা পাঠাতে বলছে।

এরই মধ্যে রাশিদা পারভীনের এক স্বজনের কাছ থেকে এভাবে ১৫ হাজার টাকা নিয়েছে ওই দুর্বৃত্ত। আরেকজন টাকা পাঠানোর আগে রাশিদা পারভীনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে ঘটনা প্রকাশ পায়। এরপর তিনি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করেও জানিয়েছেন। এরপর রাশিদাকে মানুষজন ফেসবুকে ব্যাপারটি জানান।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাকড হলে কিংবা কেউ আপনার নামে ভুয়া আইডি তৈরি করলে আপনিও আপনার কাছের মানুষদের বলুন মূল ঘটনাটি জানিয়ে দিতে। আপনি নিজেও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কিংবা ফোন করে জানিয়ে দিন। আর কেউ এভাবে টাকা চাইলে আগে তাঁর সঙ্গে ফোনে বা সরাসরি যোগাযোগ করে জেনে নিন।

ফেসবুকেই বাড়ান নিরাপত্তা

আপনার কিংবা আপনার পরিচিত কারও নামে যদি কেউ নকল অ্যাকাউন্ট খুলে ব্যবহার করে থাকে, তবে সেটি ফেসবুককে রিপোর্ট করে জানাতে পারেন। রিপোর্ট করার জন্য সেই প্রোফাইল বা পেজে যান। কভার ফটোর নিচে তিন বিন্দুওয়ালা বোতামে ক্লিক করে ফাইন্ড সাপোর্ট অর রিপোর্ট প্রোফাইলে (কিংবা পেজ) ক্লিক করুন। এরপর পর্দায় দেখানো নির্দেশনা অনুসরণ করুন।

মন্তব্য করুন