বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মনকে খারাপ হতে দিন

বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ার পর মন খারাপ হতে পারে, সেটাই স্বাভাবিক। তাই জোর করে ভালো থাকার চেষ্টা না করে মনকে খারাপ হতে দিন। অন্য সম্পর্কের মতো বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ার কারণেও আপনার শোকাহত হওয়া দরকার আছে। আপনার বন্ধুর কথা মনে করে কান্না পেলে কাঁদুন। বিচ্ছেদের এই কষ্ট মোকাবিলা করার জন্য তাড়াহুড়ো করার কোনো দরকার নেই। আপনি সময় নিয়ে নিজেকে সামলে উঠুন।

ডায়েরি বা ব্লগ লিখুন

আপনি যদি মনে করেন বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ার কষ্টগুলো শুধু আপনার, তাহলে একটা ডায়েরি নিয়ে বসুন। নিজের ভেতরের কষ্টগুলো লিখতে চেষ্টা করুন ডায়েরিতে। আবার চাইলে ব্লগ লেখার অভ্যাসও করতে পারেন। তবে বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ায় নিজের ভেতরের ভাবনা, কষ্ট ডায়েরিতে লিখে রাখাই ভালো। বন্ধুকে হারানো মানে আপনার ‘সিক্রেট লকার’ হারানো। তাই এই সময় আপনার ভেতরে তোলপাড় হতে থাকা ভাবনাগুলো ফোনে বা ডায়েরিতে টুকে রাখলে একটা ভালো সময় কাটবে।

কারও সঙ্গে কথা বলুন

বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ার পর সবচেয়ে ভালো হয় কারও সঙ্গে কথা বললে। অবশ্য শুরুতে নিজের এসব কথা বিশদে বলতে খানিকটা অস্বস্তি হতে পারে। তবে সেসব ভাবনা ঝেড়ে ফেলে আপনার ভেতরে চলতে থাকা তোলপাড় কারও কাছে শেয়ার করুন, এতে খানিকটা হালকা লাগবে। শেয়ার করার মানুষটি হতে পারে আপনার পরিবারের কেউ, আপনার পরামর্শক, সহকর্মী বা সঙ্গী। তার সঙ্গে কথা বলার সময় দোষারোপ করা থেকে বিরত থাকবেন।

নিজেকে ব্যস্ত রাখুন

একা একা ঘরে বসে না থেকে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন। অন্য বন্ধুদের সঙ্গে মিশুন। দলগতভাবে কাজ করুন। অনেক মানুষের মধ্যে থাকলে সহজেই নিজের কষ্ট কাটিয়ে উঠতে পারবেন। পরিচিতিজনদের সঙ্গে যোগাযোগের পাশাপাশি মিশুন নতুন মানুষের সঙ্গেও। হয়তো নতুন কোনো বিষয় আপনাকে আরও কৌতূহলী করে তুলবে।

সূত্র: ফেমিনা ডটকম

প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন