default-image

দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড ও সংগীতশিল্পীদের সঙ্গে বাদ্যযন্ত্র বাজাতে দেখা যায় তাঁকে৷ ফ্যাশনসচেতন তিনি৷ আজ অধুনায় থাকছে পারকাশনিস্ট মিঠুন চক্রবর্তীর স্টাইল
তাঁর হাতের ছোঁয়ায় বাদ্যযন্ত্র যেন কথা বলে৷ শিল্পীর গানের তালকে আরও প্রাণবন্ত করে তোলে তাঁর বাজনা৷ কনসার্টে বা টিভির অনুষ্ঠানে বাজানোর সময় অনেকের মধ্যে আলাদা করে চোখ পড়ে তাঁর দিকে৷ এটা তাঁর বাজনার কারণে তো বটেই, এ ছাড়া নিজস্ব স্টাইলও কাজ করে মহৌষধ হিসেবে৷ এই ব্যক্তি হলেন পারকাশনিস্ট মিঠুন চক্রবর্তী৷ কুমার বিশ্বজিৎ, জেমস, হাবিব ওয়াহিদ, এস আই টুটুল, মাইলস বা এলআরবিসহ অনেকের সঙ্গেই বিভিন্ন সময়ে বাজাতে দেখা যায় তাঁকে৷

default-image

বাবা অভিজিৎ চক্রবর্তীর তবলা আর মা কল্যাণী ঘোষের কণ্ঠে আঞ্চলিক ও মাইজভান্ডারি গান শুনতে শুনতেই বেড়ে ওঠা চট্টগ্রামের ছেলে মিঠুনের৷ নিজেও তাই, তিন বছর বয়স থেকে নিতে শুরু করেন তবলার তালিম৷ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়েই চলে যান কলকাতা৷ সেখানে সেন্ট টমাস বয়েজ স্কুল থেকে ও লেভেল শেষ করে আবার চট্টগ্রামে ফিরে আসা৷ তবে কলকাতায় থাকতে বাদ্যযন্ত্রের নেশা থেকে দূরে যেতে পারেননি৷ পশ্চিমা সংগীতের সঙ্গে পরিচিতি ঘটে অষ্টম শ্রেণীতে থাকতে৷ বাদ্যযন্ত্র ড্রাম তাঁকে বেশি টানত৷ নবম শ্রেণীতে মিলে যায় স্কুল পর্যায়ে সেরা ড্রামবাদকের পুরস্কার৷

default-image

লন্ডনে আইন পড়তে গেলেও ছয় বছর পর মিঠুন সেখান থেকে ফিরে আসেন বাদ্যযন্ত্রের ওপরে পড়াশোনা করে৷ মিঠুন বলেন, ‘আসলে আমার ঝোঁকটা ছিল যন্ত্রের দিকে৷ তাই, আইন ছেড়ে লন্ডনের টেক মিউজিক কলেজ থেকে ড্রামস অ্যান্ড পারকাশনের ওপরে পড়তে শুরু করি৷ ওখানেই মোতিম্বা (লক্ষ্মীট্যারা) ব্যান্ডের সঙ্গে কাজ শুরু করি৷ এই সময় হাবিব ওয়াহিদের সঙ্গে পরিচয় ও বন্ধুত্ব হয়৷ তিনি আমাকে দেশে এসে কাজ করার জন্য উৎসাহ দেন৷’
বাদ্যযন্ত্র বাজানোর পাশাপাশি নিজের স্টাইল নিয়েও সচেতন মিঠুন৷ কনসার্টে বাজানোর সময় পছন্দ করেন হাতাকাটা হুডিওয়ালা পোশাক, সঙ্গে জিনস ও জুতা৷ জিনসেই তিনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন৷ নিজের পছন্দের পোশাক পাঞ্জাবি৷ বাইরে বেরোলে টি-শার্ট বেছে নেন৷ বাসায় পরেন টি-শার্ট আর খাটো প্যান্ট৷ ক্যাজুয়াল পোশাকই বেশি পছন্দ করেন৷ বিশেষ অনুষ্ঠানে গেলে বেছে নেন ফরমাল শার্ট আর জিনস৷ সুগন্ধির প্রতি আছে দুর্বলতা৷ পছন্দের ব্র্যান্ড হুগোবস, ফারেনহাইট, ওয়ান মিলিয়ন, আরমািন৷ ভালোবাসেন নানা ধরনের বাদ্যযন্ত্র সংগ্রহ করতে৷ ঘরে থাকলে সারাক্ষণ নিজের সংগ্রহে থাকা যন্ত্রের সঙ্গে থাকতে ভালোবাসেন৷ এক কানে সারাক্ষণ পরেন বন্ধু হাবিবের দেওয়া হীরার দুল৷ হাতে ঘড়ি নয়, পরেন ব্রেসলেট৷ চুলের ছাঁটে ছোট কাটই দেন নিয়মিত৷ মুখের দাড়িটা ট্রিম করে কাটতেই ভালোবাসেন৷

default-image
default-image
বিজ্ঞাপন
প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন