বেড়াতে যাওয়ার আগে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুছিয়ে নিন। মডেল: রাজ ও অর্পিতা
বেড়াতে যাওয়ার আগে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুছিয়ে নিন। মডেল: রাজ ও অর্পিতাছবি: কবির হোসেন

প্রকৃতি থেকে শীত বিদায় নিয়েছে। সময়টাই যেন মনের আনন্দে ঘুরে বেড়ানোর। না শীত, না গরম—বেড়ানোর জন্য এমন আবহাওয়াই তো চাই। তবে শুধু অনুকূল আবহাওয়া দেখেই হুট করে বেরিয়ে পড়লেই তো চলে না, বেড়ানোর আগে কিছু প্রস্তুতিও থাকা চাই। বিশেষ করে, বেড়ানোর সঙ্গী ব্যাগটি গোছানোর ক্ষেত্রে বাড়তি মনোযোগ রাখা দরকার। নিজের ব্যাগটি গোছানোর আগে নিচের বিষয়গুলো খেয়াল রাখলে ভ্রমণে গিয়ে বাড়তি ঝামেলা এড়ানো সম্ভব।

  • ব্যাগে কী কী নেবেন, সেটির তালিকা করে নিলে ব্যাগ গোছানো সহজ হয়ে যাবে। সম্ভব হলে ব্যাগে প্রতিটি জিনিস ঢোকানোর পর একবার করে মিলিয়ে নিন।

  • সবার আগে যাত্রাপথের টিকিট ব্যাগের ওপরের দিকের কোনো পকেটে রাখুন। যেন প্রয়োজনের সময় খুব সহজেই বের করা যায়।

  • দেশের ভেতর কোথাও ঘুরতে গেলে সঙ্গে জাতীয় পরিচয়পত্র নিতে ভুলবেন না। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে, জন্মনিবন্ধন সনদ সঙ্গে নিন। শিক্ষার্থীরা নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছবিযুক্ত পরিচয়পত্রও সঙ্গে রাখতে পারেন। আর দেশের বাইরে ভ্রমণের ক্ষেত্রে পাসপোর্ট ও জাতীয় পরিচয়পত্র দুটোই লাগবে।

  • জাতীয় পরিচয়পত্র কিংবা পাসপোর্টের মতো গুরুত্বপূর্ণ এই জিনিসগুলো ব্যাগের নিরাপদ স্থানে রাখুন। প্রয়োজনে, গুরুত্বপূর্ণ এই কাগজগুলোর জন্য আলাদা ছোট একটি ব্যাগ ঘাড়ে ঝুলিয়ে নিন।

  • একইভাবে টাকাপয়সাও নিরাপদভাবে সঙ্গে নিন। দুর্গম কিংবা প্রত্যন্ত কোনো এলাকায় যাওয়ার ক্ষেত্রে এটিএম কার্ডের ওপর নির্ভরশীল হওয়া যাবে না। এ ক্ষেত্রে নগদ টাকা সঙ্গে নিতে হবে। ভ্রমণের সময় অবশ্যই প্রয়োজনের চেয়ে অতিরিক্ত কিছু অর্থ সঙ্গে রাখুন।

  • গন্তব্যস্থলের আবহাওয়া কেমন, তা আগে থেকে জেনে নিন। সেই অনুযায়ী প্রয়োজনী জামাকাপড় ব্যাগে ভরে নিন। এর পাশাপাশি হালকা ওজনের প্লাস্টিক বা রাবারের হাওয়াই চপ্পলও নিয়ে নিন।

বিজ্ঞাপন
default-image
  • যদি নিয়মিত কোনো ওষুধ খেতে হয়, তাহলে বাড়তি ২-৩ দিনের হিসাব করে ওই ওষুধ ব্যাগে রাখুন। এ ছাড়া মশা প্রতিরোধক ক্রিম, জীবাণুনাশক তরল, ব্যান্ডেজ, তুলা, কাঁচি, স্যালাইন, জ্বরের ওষুধসহ প্রাথমিক চিকিৎসার কিছু উপকরণ ব্যাগে নিতে ভুলবেন না। করোনার এই সময়ে অবশ্যই ব্যাগে বেশ কিছু মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবানও সঙ্গে রাখুন।

  • মোবাইল ফোনের চার্জারের সঙ্গে সম্ভব হলে পাওয়ার ব্যাংকও নিয়ে নিন। এতে যাত্রাপথেও মোবাইলে চার্জ দিতে পারবেন। গন্তব্যস্থলে বৈদ্যুতিক সমস্যা থাকলেও আপনাকে কোনো ঝামেলায় পড়তে হবে না।

  • ভ্রমণের আগে অনেকেই টুথব্রাশ ও টুথপেস্ট বা দাঁতের মাজন নিতে ভুলে যান। তাই এই ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। এ ছাড়া সাবান, শ্যাম্পু ও কিছু টয়লেট টিস্যু সঙ্গে নিন।

  • মেয়েদের পিরিয়ড হওয়ার সম্ভাবনা থাকুক বা না থাকুক, সঙ্গে স্যানিটারি ন্যাপকিন নিতে ভুলবেন না। ছোট বাচ্চা নিয়ে বেড়াতে গেলে সন্তানের জন্য বাড়তি পরিমাণ ডায়াপার সঙ্গে রাখুন।

  • বাড়তি সতর্কতার অংশ হিসেবে ছাতা, রেইনকোট, টর্চলাইট, দড়ি, রোদচশমা, টুপি ইত্যাদিও ব্যাগের এক কোনায় রেখে দিন।

  • ব্যাগের ওজন যথাসম্ভব হালকা রাখার চেষ্টা করুন। এ ক্ষেত্রে অযথা প্রয়োজনের অতিরিক্ত কাপড় বা মোটা-ভারী কোনো কাপড় না নেওয়াই ভালো। ছোট ছোট কয়েকটি ব্যাগ না নিয়ে, বড় একটি ব্যাগেই সব কটি জিনিস নেওয়ার চেষ্টা করুন।

সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস ও ট্রাভেলার্স চেকলিস্ট

প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন