default-image

আবার করোনা ফিরেছে জোরালোভাবে। ৫ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের লকডাউন দেওয়া হয়েছে। কোভিড ১৯ এর বিস্তার ঠেকাতে এই সময়ে একটি প্রজ্ঞাপনও জারি করেছে সরকার। যে প্রজ্ঞাপনের নিয়ম মেনে চলা প্রতিটি নাগরিকের কর্তব্য। নিয়ম না মানলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে। তবে এর মধ্যেও বইমেলা চলবে। বইমেলার জন্য প্রতিবছর অপেক্ষায় থাকেন বইপ্রেমীরা। তাই মার্চে শুরু হওয়া এবারের বইমেলায় এখন যাওয়া না যাওয়া নিয়ে অনেকেই আছেন দোলাচলে। খুব বেশি জরুরি না হলে ঘরে থাকা ভালো। লকডাউনে মূলত ঘরে থাকা জরুরি। তবে কেউ বইমেলার মতো জনসমাগমস্থলে গেলে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে কঠোরভাবে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার দিকে জোর দেওয়া হয়েছে বইমেলা প্রাঙ্গণেও। তবে সচেতন নাগরিক হিসেবে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের মূল দায়িত্ব কিন্তু নিজেকেই নিতে হবে। অনেকের করোনার টিকার প্রথম ডোজ নেওয়া হয়েছে। তাই বলে আপনি শতভাগ সুরক্ষিত, সেটা ভাবার কোনো কারণ নেই। মাস্ক ছাড়া কোথাও প্রবেশ করা যাবে না। ভালোভাবে মুখ ও নাক ঢেকে রাখুন মাস্কের সাহায্যে, মাস্ক খুব ঢিলেঢালা যেন না হয়। কথা বলার সময়, বই কেনার সময়, এমনকি মেলা প্রাঙ্গণে ছবি তোলার সময়ও মাস্ক সরাবেন না। মাস্কে হাত দেবেন না। মেলার প্রবেশমুখে তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে, রয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থাও। এ ছাড়া নিজের সঙ্গে ছোট্ট এক বোতল স্যানিটাইজার রাখা ভালো, প্রয়োজনমতো ব্যবহার করতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

মেলার আমেজে ভুলে যাবেন না

কমপক্ষে তিন ফুট দূরত্ব রাখুন আপনার আশপাশের মানুষের থেকে। যেদিকে ভিড় লেগেছে, নাই–বা উঁকি দিতে গেলেন সেখানে। ভিড় কমলে এরপর যান। এক দিনেই পছন্দের সব কটি বই কিনে ফিরবেন ভেবে ভিড়ের মধ্যে যাওয়া যাবে না। অনলাইনেও বই কেনা যায়। প্রথমা ডটকম, রকমারিসহ বেশ কয়েটি প্রতিষ্ঠান অনলাইনে বই বিক্রি করে থাকে। সেখানে অর্ডার দিয়েও বই বাসায় পৌঁছে নিতে পারেন। মেলায় ঢোকার সময় এবং বইয়ের স্টলে অন্যদের থেকে অন্তত তিন ফুট দূরত্ব রেখে লাইনে দাঁড়ান। পরিচিত মানুষের সঙ্গে দেখা হলে জড়িয়ে ধরবেন না, হ্যান্ডশেকও নয়। মাস্ক খোলার জন্য জোরাজুরি করবেন না অন্যকেও। বই দেখেশুনে কিনতে হলে বই তো স্পর্শ করতেই হবে, তবে মূল্য পরিশোধের জন্য ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করতে পারেন। ভিড়ের জায়গায় বসে খাবার না খাওয়াই ভালো। বাইরে অনেক ধুলাবালু। চোখে কিছু পড়ল কী? চট করে চোখে হাত দেবেন না কিংবা পানির বোতল থেকে পানি হাতে নিয়ে চোখে ঝাপটা দেবেন না। আগে হাত জীবাণুমুক্ত করে নিন।

বাড়ি ফেরার পর

বাড়ি ফিরে হাত পরিষ্কার করে নিন সাবান-পানি দিয়ে। পোশাক বদলে ফেলুন। সম্ভব হলে গোসল করে নিন। ব্যাগ ধুয়ে ফেলতে পারেন, মানিব্যাগ, মুঠোফোন ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক জিনিস মুছে নিন জীবাণুনাশক প্যাড দিয়ে। কিনে আনা বইয়ের প্যাকেট বাড়ির একটা আলাদা স্থানে রেখে দিতে পারেন, যেখানে কেউ সেটিকে স্পর্শ করবে না। কয়েক দিন পর সেখান থেকে বইগুলো বের করে নিন।

লেখক: চিকিৎসক

প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন