default-image

গত ৭ ফেব্রুয়ারি মা হয়েছেন অভিনেত্রী জান্নাতুল পিয়া। মা হওয়ার এক মাসের মধ্যেই তিনি কমিয়েছিলেন ১২ কেজি ওজন। সেই সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁর ছবি দেখে অনেকেই খানিকটা অবাকও হয়েছিলেন বটে। জান্নাতুল পিয়া বলছিলেন, মা হওয়ার পর এত দ্রুত ওজন কমানোর গল্পটা কিন্তু খুব কঠিন নয়। একটু নিয়ম মেনে চললেই যেকোনো নতুন মা-ই এই অল্প সময়ের মধ্যেই তার স্বাভাবিক ওজনে ফিরে যেতে পারবেন। এ জন্য দরকার নিজের উৎসাহ, একাগ্র চেষ্টা এবং মনোবল না হারানো।

বিজ্ঞাপন

পিয়া মনে করেন, ওজন কমানোর ব্যাপারটির সঙ্গে শুধু সৌন্দর্য নয়, সুস্থতার ব্যাপারও গভীরভাবে জড়িত। অনেক মেয়েই নতুন মা হওয়ার পর এই অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়া নিয়ে বিষণ্নতায় ভোগেন। ভাবেন, হয়তো কখনো আর আগের অবস্থায় ফিরে যাওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু সাধারণ কিছু জিনিস মানলেই খুব সহজেই আগের ওজনে ফিরে আসা সম্ভব। যেমনটি করেছেন পিয়া। এই সময়টায় ছেলে এরিসকে নিয়মিত বুকের দুধ পান করাচ্ছেন। পাশাপাশি নিজের পুষ্টিকর খাবারদাবারের প্রতিও বিশেষ খেয়াল ছিল পিয়ার।

default-image

১. জন্মের পর থেকেই ছেলেকে স্তন্যপান করান পিয়া। তিনি মনে করেন, তাঁর ওজন দ্রুত কমে যাওয়ার এটা একটা অন্যতম কারণ।

২. স্তন্যপান করানোর সময় মা যদি বেশি খাবার না খান, তাহলে সন্তান পর্যাপ্ত খাবার পাবে না বলে এক ধরনের ভ্রান্ত ধারণা আছে আমাদের সমাজে। যে কারণে বাচ্চা হওয়ার পর অতিরিক্ত খাবার খেয়ে মুটিয়ে যান মায়েরা। অতিরিক্ত খাবার নয়, এই সময় মায়ের খেতে হবে পরিমাণমতো পুষ্টিকর খাবার। মা যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টিকর খাবার খান, তবে তাঁর সন্তানও পর্যাপ্ত খাবার পাবে। যে কারণে ছেলের জন্মের পর থেকে পিয়া পুষ্টিকর খাবারের ডায়েট চার্ট অনুসরণ করেন। সে তালিকায় প্রতিদিন থাকে এক গ্লাস দুধ, যেটা নতুন মায়ের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় খাবার। পাশাপাশি প্রতিদিন লাউ আর কালোজিরা খেয়ে থাকেন পিয়া।

default-image
বিজ্ঞাপন

৩. সিজারিয়ান অপারেশনের পর নতুন মাকে বিভিন্ন রকম ভিটামিন সাপ্লিমেন্ট খেতে দেওয়া হয়। অনেক মা তা অবহেলা করেন। এ কারণে পরবর্তী সময়ে চুল ও ত্বকে দেখা দেয় নানা রকম সমস্যা। মা হওয়ার পরপরই চিকিৎসকের পরামর্শমতো বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন নিয়মিত খাচ্ছেন জান্নাতুল পিয়া। যে কারণে ত্বক ও চুল স্বাভাবিকতা হারায়নি বলে মনে করেন তিনি।

৪. এরিসের জন্মের দেড় মাস পর থেকে শরীরচর্চা শুরু করেন তিনি। পিয়া বললেন, খুব ভারী নয়, হালকা কিছু ব্যায়ামই তাঁকে ফিট রাখতে সাহায্য করেছে। তবে এই ব্যায়াম অবশ্যই যাঁর যাঁর চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী করা উচিত।

৫. অস্ত্রোপচারের পরদিন থেকেই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পেটে বেল্ট বাঁধতে শুরু করেন তিনি। যে কারণে পেটের ত্বক ঝুলে যাওয়ার যে সমস্যা দেখা দেয়, তা নিজের ক্ষেত্রে হয়নি বলে জানালেন পিয়া।

৬. মা হওয়ার আগে থেকেই নিয়মিত চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে ইউটিউব দেখে শরীরচর্চা করতেন জান্নাতুল পিয়া।

এ ছাড়া মা হওয়ার পরপরই প্রসব-পরবর্তী বিষণ্নতায় ভোগেন অনেকে। এটা তাঁদের জন্য খুব সাধারণ একটা সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। এই সময় অন্য কারও সাহায্যের জন্য অপেক্ষা না করে নিজে থেকেই মাকে ভালো থাকার চেষ্টা করতে হবে, এমনটাই বললেন জান্নাতুল পিয়া। এই ভালো থাকাটা এই সময়ে খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। নিজের মন যদি ভালো থাকে, তবে তার প্রভাব অবশ্যই চেহারায় পড়তে বাধ্য।

default-image
প্র অধুনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন