৩০ আগস্ট শুরু হয়েছে মাহিয়া মাহি অভিনীত নবাব এলএলবি ছবির শুটিং
৩০ আগস্ট শুরু হয়েছে মাহিয়া মাহি অভিনীত নবাব এলএলবি ছবির শুটিং

শুটিং সেটে আবার প্রাণ

default-image

জুন থেকে বিনোদনের জগৎ ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে। তখন থেকেই নাটক-বিজ্ঞাপনচিত্রের শুটিং চলছে পুরোদমে। কিন্তু চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু নিয়ে ছিল মত-দ্বিমত। বিচ্ছিন্নভাবে সংক্ষিপ্ত পরিসরে দু–একটি ছবির শুটিং হলেও নিরাপত্তা নিয়ে ছিল সংশয়। তাই ঢালিউডের বড় তারকারা করোনাকালের নিয়ম মেনে স্বেচ্ছায় সঙ্গনিরোধে ছিলেন। অবশেষে প্রায় ছয় মাসের বিরতি ভেঙে সিনেমার শুটিং পুরোদমে শুরু হলো। চলতি মাসে শুরু হয়েছে কয়েকটি সিনেমার শুটিং।

বিজ্ঞাপন

শাকিবের অপেক্ষায় শুটিং সেট

default-image

শুরুতেই বলা যাক বড় বাজেটের ছবি নবাব এলএলবি কথা। করোনাকালের আগে এ ছবির শুটিং–পূর্ববর্তী কাজ চলছিল। পরিকল্পনা ছিল ২৬ মার্চ শুটিং শুরু করার। এপ্রিলের মধ্যেই কাজ শেষ করে চলতি বছরের ঈদে সিনেমাটি মুক্তি দিতে চেয়েছিলেন নির্মাতা। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়াল করোনাভাইরাস, শুরু হওয়ার আগেই শুটিংয়ে পড়ল ছেদ। অবশেষে ৪ মাস পর ৩০ আগস্ট শুরু হলো শাকিব খান, মাহিয়া মাহি ও স্পর্শিয়া অভিনীত নবাব এলএলবি ছবির শুটিং।

ছবির পরিচালক অনন্য মামুন জানান, শুটিংয়ে ছেদ পড়ায় ছবির নির্মাণ খরচ এখন অনেক বেড়ে গেছে। মার্চে যে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল, তার সবই নষ্ট হয়েছে। এতে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রযোজক। মামুন বলেন, ‘এখন যেভাবে কাজ শুরু করলাম, তাতে পদে পদে নতুন অভিজ্ঞতা হচ্ছে। সাবধানতা মানতে গিয়ে কাজের গতি কমে যাচ্ছে। করোনার আগে যে শুটিং শেষ করতে ৩০ দিন লাগত, সেটা এখন শেষ করতে ৪৫ দিন লাগবে। এতে বাজেট প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যাবে।’

তবে এই মন্দের মধ্যেও ভালো আছে। মামুন আরও বলেন, করোনার কারণে এখন শুটিং সেটে শৃঙ্খলা বজায় রাখা সহজ হয়। সাধারণ সময়ে শুটিংয়ে হইচই, লোকজনের ভিড়, দর্শনার্থীদের সমাবেশ থাকত।

নবাব এলএলবির শুটিং সেটে এখন কাজ করছেন স্পর্শিয়া। আজ ১০ সেপ্টেম্বর থেকে শাকিব খান ও মাহি যোগ দেবেন শুটিংয়ে। শাকিব প্রায় চার মাস পর ক্যামেরার সামনে দাঁড়াবেন।

বিজ্ঞাপন

আবার জাহাজে জাহাজে সিয়াম-পরী

default-image

৪ সেপ্টেম্বর থেকে খুলনার রূপসা ঘাটে শুরু হয়েছে অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন ছবির দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ। প্রায় চার মাস বন্ধ থাকার পর ছবিটির শুটিং আবার শুরু হলো। শুটিংয়ে অনেক শিশুশিল্পী থাকার কারণে সেটে বাড়তি সর্তকতা নেওয়া হয়েছে। ছবির পরিচালক আবু রায়হান জানান, করোনা থেকে রক্ষার জন্য দ্বিতীয় পর্যায়ে বিপুল পরিমাণ সুরক্ষাসামগ্রী কেনা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এ ছবির শুটিং আবার শুরু করার আগে প্রত্যেক শিল্পীর করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমাদের শুটিং দলটি অনেক বড়। এ কারণে একটু বেশি সর্তকতা মানতে হচ্ছে। আর্থিক ও মানসিক—দুটো চাপই আগের চেয়ে বেড়েছে। এ পরিস্থিতিতে একেকটি দৃশ্য শেষ করতে অনেক সময় লাগছে। ফলে ছবি তৈরির খরচ আরও ১০ লাখ টাকা বেশি হচ্ছে।’

ছবিটিতে প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করছেন সিয়াম ও পরীমনি। করোনাকালে শুটিংয়ের প্রথম দিনের অভিজ্ঞতা নিয়ে সিয়াম বলেন, ‘সহজভাবে কাজ করা যাচ্ছে না। সাধারণ সময়ে অনেক ভিড় সামলেও দিব্যি কাজ করে ফেলতে পারতাম। এখন অনেক চিন্তাভাবনা করে তারপর ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে হচ্ছে।’

আর্থিক ও মানসিক—দুটো চাপই আগের চেয়ে বেড়েছে। এ পরিস্থিতিতে একেকটি দৃশ্য শেষ করতে অনেক সময় লাগছে। ফলে ছবি তৈরির খরচ আরও ১০ লাখ টাকা বেশি হচ্ছে।
আবু রায়হান, পরিচালক, অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন
বিজ্ঞাপন

বিএফডিসিতে টুঙ্গিপাড়ার মিয়াভাই

default-image

করোনাকালের বিরতির পর ৪ সেপ্টেম্বর থেকে বিএফডিসিতে (বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থা) নতুন করে শুরু হয়েছে টুঙ্গিপাড়ার মিয়াভাই ছবির শুটিং। ছবির পরিচালক শামীম আহমেদ বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগস্টে ছবির শুটিং শুরু করেছিলাম। কিন্তু মাঝখানে আবার কাজ বন্ধ রাখি। কারণ, এখন আগের মতো টানা কাজ করা কঠিন। সিনেমার শুটিংয়ের দলটা সাধারণত বড় হয়। এত বড় দলে করোনায় সংক্রমণের ঝুঁকিও বেশি। সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হয়। তাই সব দিক বিবেচনা করে বিরতি দিয়ে দিয়ে কাজ করছি।’ টুঙ্গিপাড়ার মিয়াভাই ছবিতে মূল দুটি চরিত্রে অভিনয় করছেন শান্ত খান ও দীঘি।

বিজ্ঞাপন

শুটিংয়ে ফেরার অপেক্ষায়

এদিকে ঢালিউডের অনেক পরিচালক ও প্রযোজক জানিয়েছেন, অক্টোবর নাগাদ শুরু হয়ে যাবে আটকে থাকা সব ছবির শুটিং। কিছু নতুন ছবির শুটিংও শুরু হবে এ সময়ের মধ্যে। অপারেশন সুন্দরবন, সিক্রেট এজেন্ট, গিরগিটি, হৃদিতা, ইত্তেফাক, গ্যাংস্টার, মুখোশ, আকবর নামের ছবিগুলোর সেটে শিগগিরই আলো জ্বলবে। কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়বেন আরিফিন শুভ, নুসরাত ফারিয়া, বিদ্যা সিনহা মিম, পূজা চেরি, রোশানের মতো তারকারা।

মন্তব্য পড়ুন 0