বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিচারব্যবস্থায় পক্ষপাতিত্ব চাই না

default-image

তাসলিমা ইয়াসমীন

সহযোগী অধ্যাপক, আইন বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

নতুন বছরে আমি চাই না নারীর প্রতি সহিংসতা ও বাল্যবিবাহর ঘটনাগুলো উপেক্ষিত হোক। এই সামাজিক প্রথাগুলো বন্ধ করতে সহিংসতাকে দমন করতে যা যা করার দরকার করতে হবে। একজন নারী যখন নির্যাতনের শিকার হয়ে বিচারের জন্য আসেন, তাঁকে যেন হতাশ হয়ে ফিরতে না হয়, তাঁকে যেন আরও হয়রানির শিকার হতে না হয়। আমরা চাই না এই বছরেও একজন ধর্ষককে, একজন নির্যাতনকারীকে সহানুভূতির সঙ্গে দেখা হোক। বরং আমরা চাই, যিনি নিপীড়নের শিকার হলেন, তাঁর পাশে দাঁড়াতে। জাতীয়-উপজেলা পর্যায়ে যে কমিটিগুলো আছে, তাদের জবাবদিহি নিশ্চিত করতে হবে। বিচারব্যবস্থায় নারী হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন। বিচারব্যবস্থায় পক্ষপাতিত্ব চাই না। বিচার বিভাগে যাঁরা সততার সঙ্গে কাজ করতে চান, তাঁরা যেন বাধার সম্মুখীন না হন।

ধর্ষণ মামলায় মিথ্যা রিপোর্ট চাই না

default-image

ইলিরা দেওয়ান

সাবেক সাধারণ সম্পাদক, হিল উইমেন্স ফেডারেশন

নতুন বছরটাতে তো পুরোনো অনেক কিছুই চাই না। বিশেষ করে পুরুষতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থা এবং মনোভাব। আমাদের সমাজে পুরুষতান্ত্রিক মনোভাব যেভাবে নারীকে দমিয়ে রেখেছে, তা থেকে আদিবাসী নারীরাও বাদ পড়েননি। পাহাড়-সমতলের নারীরা দিনের পর দিন এই সহিংসতা সহ্য করে আসছেন। এটা থেকে মুক্তি পেতে হবে। ধর্ষণের পর নারীর যে মেডিকেল রিপোর্ট আসে, সেটা নেতিবাচক দেওয়ার জন্য একটা চাপ থাকে। এই মিথ্যা রিপোর্টের কারণে বিচার পান না নির্যাতিত নারীরা। মিথ্যা রিপোর্ট প্রদানের জন্য যে প্রভাব খাটানো হয়, আদিবাসীসহ সব সমাজব্যবস্থা থেকে তা বন্ধ করতে হবে।

নারীমঞ্চ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন