ছবি সংরক্ষণের দিন

কত কত কাল–মহাকাল পেরিয়ে ছবি তোলার প্রক্রিয়া এসে দাঁড়িয়েছে আজকের অবস্থানে। মানুষের হাতে আঁকাআঁকির দিন থেকে রিল, নেগেটিভ, ধোয়া-মোছার দিন; এরপর ডিজিটাল ক্যামেরা এবং হালের মুঠোফোন। এই যে মুহূর্তকে বন্দী করে রাখার নিরন্তর চেষ্টা মানুষের, কতটুকু পেরেছে মানুষ! হ্যাঁ, পেরেছে তো বটেই। নইলে যুগ-যুগান্তর, শতাব্দী পেরিয়ে যখন কোনো স্থিরচিত্র আমাদের সামনে এসে দাঁড়ায়, আমরাও যেন টাইম মেশিনে চড়ে ফিরে যাই সেসব দিনে। একেবারে ব্যক্তিস্মৃতি থেকে শুরু করে গোটা পৃথিবীর কালানুক্রমিক ইতিহাস ধরে রাখে ক্যামেরার ফ্রেম। হারিয়েও তো যায় কত! স্মৃতিকাতর কত ছবি হারিয়ে যায়, নষ্ট হয়। ধুলোপড়া অ্যালবাম ঝেড়েমুছে অতীত খুঁজতে গিয়ে দেখা যায়, ঝাপসা হয়ে গেছে কত ছবি।

বিজ্ঞাপন
default-image

কম্পিউটার আর মুঠোফোনের স্মৃতিভান্ডারে জমা রাখা ছবিও হুট করে কখনো কখনো নষ্ট হয়। যান্ত্রিক ত্রুটি কিংবা যন্ত্রটি হারিয়ে যাওয়া বা চুরি যাওয়ায় সেসব হয়তো পুনরুদ্ধারও করা যায় না। এখন অবশ্য দিন বদলেছে। ক্লাউডের ভার্চ্যুয়াল স্টোরেজ স্মৃতি জমা রাখার নির্ভরযোগ্য প্ল্যাটফর্ম হয়ে উঠেছে। অবশ্য তার জন্য নিয়ম মেনে ছবি সংরক্ষণ কিন্তু জরুরি।

আজ ২৬ সেপ্টেম্বর, ছবি সংরক্ষণ দিবস। প্রতিবছর সেপ্টেম্বরের শেষ শনিবার দিবসটি পালিত হয়। ‘দ্য সেভ ইয়োর ফটোস অ্যালায়েন্স’ নামের অলাভজনক একটি সংগঠন দিবসটির অন্যতম প্রধান সমর্থক। এটি ছবি সংরক্ষণের নানা রকম তথ্য এবং ছবির সুরক্ষার বিভিন্ন প্রক্রিয়া মানুষকে জানানোর ব্যাপারে কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে ছবি সংরক্ষণে বরাদ্দ থাক আজকের দিনটি।

ডে’জ অব দ্য ইয়ার অবলম্বনে

মন্তব্য পড়ুন 0