কিন্ডারগার্টেন থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হলাম দ্বিতীয় শ্রেণিতে। স্কুলে সবাই নির্ধারিত পোশাক পরে আসে। বাবাকে বললাম, আমার স্কুলের ড্রেস বানিয়ে দিতে হবে। পরদিনই কাপড় নিয়ে দরজির দোকানে সেলাই করতে দিলাম। দরজি সময় নিল পাঁচ দিন। চোখের পলকে পাঁচ দিন চলে গেল। তখন রাত নয়টার মধ্যে ঘুমিয়ে যেতাম। বাবা নতুন পোশাক আনবেন বলে সেদিন ঘুম আসছিল না। কিন্তু বাবা ফিরলেন স্কুল ড্রেস ছাড়াই, মনটা ভীষণ খারাপ হয়ে গেল। পরের দিন স্কুলে দাঁড় করিয়ে রাখল স্কুল ড্রেস পরে যাইনি বলে। মনটা আরও খারাপ হলো। স্কুল থেকে ফিরেই কান্না জুড়ে দিলাম। বাবা আমাকে সান্ত্বনা দিয়ে বাজারে চলে গেলেন। তবে সেদিনও স্কুল ড্রেস ছাড়াই ফিরলেন। রাতভর যেন কাঁদলাম। সকালে আর স্কুলে যাইনি।

বিজ্ঞাপন

সে রাতে বাবা এলেন স্কুলের ড্রেস হাতে। আমার আনন্দ যেন ধরে না। কিন্তু প্যান্ট পরতে গিয়ে দেখি পা আর ঢোকে না। ভীষণ রাগ হলো দরজির ওপর, সে রাগ ঝাড়লাম বাবার ওপর। বাবা পরদিন বসে থেকে প্যান্ট বানিয়ে এনেছিলেন। আজও সেই দিনের কথা মনে পড়ে আমার। হয়তো কোনো দিন ভুলতে পারব না।

প্র ছুটির দিনে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন