লুইস মার্টিনেজ
লুইস মার্টিনেজ বিবিসি

লুইস মার্টিনেজ পেশায় একজন কুলি। বিশেষ কায়দায় বানানো হস্তচালিত গাড়ি নিয়ে বসে থাকেন বাসস্ট্যান্ডের পাশে। যাত্রীদের মালসামান বয়ে নিয়ে যান গন্তব্যে। তবে বসে থাকার সময়টায় তিনি হাতে তুলে নেন কলম। খেরোখাতায় লিখে চলেন কবিতা। এভাবে মার্টিনেজ প্রায় তিন হাজার কবিতা লিখেছেন। তাঁর কবিতায় জীবন্ত হয়ে উঠেছে বিভিন্ন দেশের শত শত শহর। মজার ব্যাপার হলো, ভ্রমণনিষেধাজ্ঞার কারণে অনেক কিউবানের মতো মার্টিনেজের ভাগ্যেও মাতৃভূমি ছাড়া কোনো দেশ ভ্রমণের সুযোগ ঘটেনি।

বিজ্ঞাপন
default-image

লুইস মার্টিনেজ ২০ বছর ধরে বসবাস করছেন কিউবার ত্রিনিদাদ শহরে। ত্রিনিদাদ আমেরিকান ঔপনিবেশিক শহর। পাথুরে পথের কারণে আলাদা পরিচিতি আছে শহরটির। আঠারো ও উনিশ শতকের স্থাপত্য শহরটিকে দিয়েছে অন্য মর্যাদা। এই শহরে থেকেই হয়ে উঠেছেন বিশ্ব পর্যটক, মনে মনে ঘুরে বেরিয়েছেন দেশে দেশে, বিচিত্র শহরে। ত্রিনিদাদ শহরে বেড়াতে আসা বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের সঙ্গে গড়েছেন সখ্য, জেনেছেন তাঁদের দেশের গল্প, শহরের গল্প। এমন পর্যটক আর ঐতিহ্যের কারণেই ত্রিনিদাদকে বেছে নিয়েছেন মার্টিনেজ। দিনভর কুলির কাজ করেন। রাতে হাতে নিয়ে বসেন মানচিত্র সংকলন অ্যাটলাস। তাঁর মানসভ্রমণ চলে এক দেশ থেকে অন্য দেশে। লেখেন কবিতা।

সূত্র: বিবিসি

প্র ছুটির দিনে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন