বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সুন্দরবন ঘুরতে এসেই ছবি তোলার ভূত চাপল। ক্যামেরা তো সব সময় সঙ্গেই থাকে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব, মানুষের জীবন ও জীবিকা নিয়ে নিয়মিত ছবি তুলি। মনে হলো সুন্দরবনে মৌয়ালদের রোজকার জীবন নিয়ে ছবি তুললে মন্দ হয় না। সুতারখালী গ্রামের মৌয়াল ওয়াহেদ গাজীর সঙ্গে পরিচয় হলো। তিনি সোহেল মল্লিকের খালু।

মৌয়াল ওয়াহেদ গাজীর সঙ্গে পথ ধরি সুন্দরবনের। বেলা ১১টায় বেরিয়েও দেখি প্রচণ্ড শীত। কনকনে ঠান্ডায় নৌকায় উঠতে যাব, তখনই ঘটল বিব্রতকর এক ঘটনা। পা পিছলে আমি ক্যামেরাসহ পানিতে পড়ে গেলাম। ভাগ্যিস হাত উঁচুতে রাখতে পেরেছিলাম বলে ক্যামেরাটা রক্ষা পেল। আমি ভিজে একাকার।

default-image

ভেজা শরীরেই যাত্রা শুরু হলো। অল্প সময়েই প্রবেশ করলাম সুন্দরবনে। নৌকায় বসে সুন্দরবনের নানা গল্প শুনি ওয়াহেদের মুখে। শীতকালে সুন্দরবনের বাঘ যে লোকালয়ে চলে আসে, এটাও জানান তিনি। ওয়াহেদ ১৯৮৮ সাল থেকে সুন্দরবনে মধু সংগ্রহ করেন। এই বনের নাড়িনক্ষত্র তাঁর চেনা।

প্রায় তিন কিলোমিটার খাল বেয়ে গভীর জঙ্গলে প্রবেশ করেছি ততক্ষণে। মৌয়াল ওয়াহেদের ইশারায় নৌকা থেকে নেমে পড়ি আমরা। তাঁর পিছু পিছু মৌচাক খুঁজতে থাকি। আমি অবশ্য মৌচাক খুঁজি না, নজর রাখি বাঘের দিকে! নৌকায় বসে গল্প শুনতে শুনতে বাঘের ভয় চেপে বসেছিল। তা দূরই করতে পারছিলাম না।

সুন্দরবনে শ্বাসমূলের কারণে হাঁটা অনেক কঠিন। প্রায় এক কিলোমিটার পথ হাঁটার পর মৌয়াল আমাদের থামালেন। তিনি একটি মৌচাকের সন্ধান পেয়েছেন। মৌচাক পর্যবেক্ষণ করে মৌয়াল ওয়াহেদ মৌচাক কাটার প্রস্তুতি নেন। ধোঁয়া তৈরির জন্য শুকনো পাতার কুণ্ডলী তৈরি করেন।

পাতার কুণ্ডলী তৈরি হলো বটে, বিপত্তি বাধল আগুন ধরাতে গিয়ে। মৌয়াল ওয়াহেদ লাইটার আনতে ভুলে গেছেন। পানিতে পড়ে যাওয়ার কারণে আমার কাছে যে লাইটার ছিল, সেটাও ঠিকভাবে কাজ করছিল না। তিনজনের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ। আগুন জ্বালিয়ে ধোঁয়া তৈরি করতে না পারলে মৌচাক থেকে মধু সংগ্রহ করা যাবে না। মনটা খারাপ হয়ে গেল।

চেষ্টায় কী না হয়! প্রায় ১৫ মিনিট চেষ্টার পর আমার ভেজা লাইটারের সাহায্যে আগুন জ্বালানো গেল। স্বস্তির নিশ্বাস ফেললাম। মৌয়াল ওয়াহেদ গাছে উঠে গেলেন। মৌচাকে ধোঁয়া দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মৌমাছিরা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ল। মৌমাছির কামড়ের কথা মনে হতেই ক্যামেরা হাতে গাছের আড়ালে জায়গা নিই। সেখান থেকেই তুলতে থাকি মৌয়ালের মধু সংগ্রহের ছবি। যার মধ্যে একটি ছবি এবারের ম্যানগ্রোভ ফটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ডে প্রথম হয়েছে।

প্র ছুটির দিনে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন